আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আই লিগে টানা তিন ম্যাচে হার। চার্চিল ব্রাদার্স, গোকুলামের পর ডার্বি। চারিদিকে সমালোচনা চলছিল। তার জেরেই কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের কোচের পদ থেকে পদত্যাগ করলেন আলেসান্দ্রো মেনেন্দেস। 
কোয়েস সিইও সুব্রত নাগের আজই বেঙ্গালুরু থেকে এসে বৈঠকে বসার কথা ছিল ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের সঙ্গে। পরিস্থিতি আঁচ করেই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন আলেসান্দ্রো। মঙ্গলবার স্প্যানিশ কোচ জানান, ব্যক্তিগত কারণে তিনি দেশে ফিরে যেতে চান। সেই কারণেই কোচিংয়ের দায়িত্ব ছাড়ছেন তিনি। তবে ফুটবল মহল মনে করছে ইস্তফার পিছনে অন্য কারণ রয়েছে। আই লিগে টানা তিন ম্যাচ হারের ফলে বেশ কোণঠাসা ইস্টবেঙ্গল। চার্চিল ও গোকুলামের পর ডার্বিতেও হারের পর লিগ টেবিলে অনেক পিছিয়ে পড়েছে লাল–হলুদ ব্রিগেড। ফলে কোচের বিরুদ্ধে কর্তা থেকে সমর্থকদের রোষ বাড়ছিল। ক্রমেই কোয়েস কর্তাদেরও বিরাগভাজন হচ্ছিলেন আলেসান্দ্রো। তাই সবদিক ভেবেই ইস্তফার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। 
রবিবার যুবভারতীতে ডার্বিতে ১–২ গোলে হারের পরও নিজের জয়গান গাইতে শোনা যায় আলেসান্দ্রোকে। যা দেখে রীতিমতো অবাক হয়েছিল ফুটবল মহল। বলেছিলেন, তিনি দলকে যে জায়গায় পৌঁছে দিয়েছেন, গত ১৪ বছরে কেউ পারেননি। তাঁর কথা শুনে হাসি চেপে রাখতে পারেননি লাল–হলুদ কর্তা দেবব্রত সরকার। কঠিন সময়ে ডার্বি হারের পর লাল–হলুদ কোচের এমন অহঙ্কার ভাল মনে নেননি সমর্থক থেকে কোয়েস–ক্লাব কর্তা, কেউই। পরিস্থিতি হয়তো আঁচ করতে পেরেছিলেন কোচ। আর সেই কারণেই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিলেন। 
লিগ তালিকায় সাত নম্বরে চলে গেছে ইস্টবেঙ্গল। পদত্যাগ করলেন আলেসান্দ্রো। তীব্র ডামাডোল ইস্টবেঙ্গলে। পরবর্তী কোচের বিষয়ে শীঘ্রই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ক্লাব কর্তৃপক্ষ। ‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top