অগ্নি পাণ্ডে: শতবর্ষে টালমাটাল ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের দিকে হাত বাড়াচ্ছেন বিজেপি–র শীর্ষনেতৃত্ব। মঙ্গলবার দিল্লির এক বিশেষ সূত্র থেকে জানা েগছে, কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রক থেকে ইস্টবেঙ্গল শীর্ষকর্তাদের কাছে ক্রমাগত বার্তা আসছে। যার মর্মার্থ— তাঁদের সঙ্গে থাকতে চায় কেন্দ্রীয় সরকার। আগামী মরশুমে আইএসএল খেলার জন্য স্পনসর খুঁজে দেওয়া এবং তাদের মারফৎ যাবতীয় পরিকাঠামোও তৈরি করে দেওয়া হবে। 
বারংবার বার্তা এলেও ইস্টবেঙ্গল এখনও সাড়া দেয়নি। তবে প্রস্তাবগুলি কর্মকর্তাদের গোচরে আছে। এদিন  ইস্টবেঙ্গল শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকারকে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি ‘নো কমেন্টস’–এর বেশি কিছু বলতে চাননি। তবে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক কর্তাদের একাংশের মতে, রাজ্যে এনআরসি এবং ক্যা প্রশ্নে ‘কোণঠাসা’ বিজেপি তাঁদের হাত ধরে আসলে লক্ষ লক্ষ ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের মন জয়ের চেষ্টা করছে। ইতিহাসগতভাবে ইস্টবেঙ্গলের সমর্থকরা পূর্ববাংলা থেকে আসা ছিন্নমূল উদ্বাস্তু। তাঁদের প্রিয় ক্লাবকে আইএসএলে খেলিয়ে আসলে রাজ্যের উদ্বাস্তু ভোট কব্জা করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলেই ওই কর্তাদের ব্যাখ্যা। তবে বিজেপি সূত্রে আনুষ্ঠানিকভাবে এর কোনও সমর্থন মেলেনি। কেন্দ্রীয় বিজেপি–র এক নেতা শুধু বলেছেন, ইস্টবেঙ্গল কলকাতা ময়দানের জনপ্রিয় এবং পুরনো ক্লাব। এ বছর তাদের শতবর্ষ। সাহায্যের প্রস্তাব সেই কারণেই। প্রসঙ্গত, মোহনবাগান–এটিকে গাঁটছড়া বাঁধার পর থেকেই আগামী মরশুমে আইএসএল খেলার জন্য প্রবল চাপ তৈরি হয়েছে ইস্টবেঙ্গলের উপর। বিনিয়োগকারী সংস্থা কোয়েসের সঙ্গেও সম্পর্কও ভাঙনের মুখে। আগামী মে মাসে ওই সম্পর্ক ভেঙে যাবে। কর্তাদের লাগাতার চেষ্টা সত্ত্বেও এখনও নতুন বিনিয়োগকারী সংস্থা পাওয়া যায়নি। এই পরিস্থিতিতেই বিজেপি–র তরফে প্রস্তাব। ইস্টবেঙ্গল বিজেপি–র সাহায্য নিলে দেশের নামীদামি কর্পোরেট সংস্থাগুলির সাহায্য পাওয়া সহজ হবে। পক্ষান্তরে, বিজেপি–ও লক্ষ লক্ষ ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের কাছে নিজেদের ‘ত্রাতা’ হিসেবে জাহির করতে পারবে। যে মঞ্চে দাঁড়িয়ে তারা এ বছর পুরভোটে এবং আগামী বছর রাজ্যে বিধানসভা ভোটে যেতে চাইবে।  
ফুটবলের পাশাপাশি ক্রিকেটদল চালানো নিয়েও কোয়েস–ইস্টবেঙ্গল সমস্যা তৈরি হয়েছে। ফুটবলের মতো ক্রিকেটদলও চালানোর চুক্তি হয়েছিল। সেইমতো ক্রিকেটারদের টাকা দেওয়ার কথা কোয়েসের। সংস্থার সিইও সঞ্জিত সেন চুক্তিতে সইও করেছেন। কিন্তু ভরা ক্রিকেট মরশুমে লাল–হলুদ ক্রিকেটারদের গত তিন মাস ধরে টাকা দিচ্ছে না কোয়েস। বাধ্য হয়ে শেষপর্যন্ত ইস্টবেঙ্গল ক্রিকেটারেরা সিএবি–র দ্বারস্থ হয়েছেন। জানা গেছে, কোয়েসের বিরুদ্ধে সিএবি–তে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top