ইস্টবেঙ্গল–০ 
কাস্টমস–০
 
আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ উদ্দেশ্যহীন ফুটবলে প্রাপ্তি একরাশ হতাশা। কাস্টমস বাদ দিন। আটবারের লিগ জয়ীদের প্রস্তুতিই ঠিকঠাক হয়নি। এই দলকে নিয়ে আরও অনেক পরিশ্রম, ঘষামাজা করতে হবে সুভাষ ভৌমিককে। লাল–হলুদ ফুটবলারদের মধ্যে জেতার অদম্য ইচ্ছেও নজরে পড়ল না। কলকাতা লিগকে প্রস্তুতি হিসেবে দেখছে মোহন–ইস্ট। কিন্তু তাই বলে এতটা বিচ্ছিরি ফুটবল খেলবে আটবারের লিগজয়ীরা। মোহনবাগান তাও টানা দুটি ম্যাচে জিতেছে। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল খেললটা কী!‌ একটা ভাল মুভ তৈরি হল না। মাঝমাঠে বল ধরার লোক নেই। উইং প্লে নেই। হবার মধ্যে হল কিছু বিক্ষিপ্ত আক্রমণ। যা থেকে ইস্টবেঙ্গল কিংবা কাস্টমস যে কেউ গোল পেতে পারত। 
আমনাও কিছু করতে পারেননি। লিগে পশ্চিমবঙ্গ পুলিসকে ২–০ ব্যবধানে হারিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। টালিগঞ্জ ম্যাচ ভেস্তে গেছে। কিন্তু কাস্টমস ম্যাচে ড্র করে চাপে পড়ে গেল সুভাষ ভৌমিকের ছেলেরা!‌ ৮৭ মিনিটে ফাঁকা গোলে বল ঠেলতে ব্যর্থ হলেন লাল–হলুদ ফুটবলার। ইনজুরি টাইমেও তাই। গোল করার লোকের বড় অভাব এই ইস্টবেঙ্গলে। কোচ সুভাষ ভৌমিক আর কী করবেন!‌ মাঠের বাইরে বিরক্তিপ্রকাশ করা ছাড়া।
তার উপর রেফারির বদান্যতায় আট মিনিট ইনজুরি টাইম পেয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। যদিও রেফারি খেলালেন নয় মিনিট। তাও একটা গোল করতে পারল না আটবারের লিগজয়ীরা। মেহতাব কিংবা কাটসুমির অভাব কী টের পাচ্ছেন লাল–হলুদ কর্তারা?‌ 

এভাবেই কাস্টমসের কাছে বারবার আটকে গেল ইস্টবেঙ্গল 
‌‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top