সংবাদ সংস্থা,সিডনি: প্রায় আট বছরের বৈবাহিক জীবনে ছেদ পড়ল মাইকেল ক্লার্কের। ২০১২ সালের মে মাসে কাইলের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়কের। কিন্তু সেই জুটি ভেঙে গেল। সূত্রের খবর, মাস পাঁচেক ধরেই ক্লার্ক এবং কাইল আলাদা থাকছিলেন। তাঁদের চার বছরের এক কন্যাসন্তানও আছে। 
বুধবার এক বিবৃতি দিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘোষণা করেন ক্লার্ক এবং কাইল। বিবৃতিতে লেখা রয়েছে, ‘‌কিছু সময় আমরা আলাদা ছিলাম। তারপর একমত হয়েই দম্পতি হিসেবে আলাদা থাকার কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা পারস্পরিক সম্মান বজায় রেখে যৌথ সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, এটাই সঠিক সময়। তবে মেয়ের জন্য আমরা আমাদের যৌথ দায়িত্ব পালন করব।’‌ জীবনের আগামীতে চলার পথে তাঁদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা যাতে বজায় থাকে, তার জন্যও অনুরোধ করেছেন ক্লার্ক এবং কাইল। 
প্রাক্তন অসি তারকার বিবাহ বিচ্ছেদের খবরে অনেকেই স্তম্ভিত। কারণ, এক বছর আগে কাইল জানিয়েছিলেন, তাঁদের বৈবাহিক সম্পর্ক দিনের পর দিন মজবুত হয়েছে। কিন্তু এখন প্রশ্ন উঠেছে, কী এমন ঘটল যার জন্য বিচ্ছেদের রাস্তায় হাঁটলেন ক্লার্ক এবং কাইল। জানা গেছে, আদালতের বাইরেই আলোচনা করে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্তে সম্মত হয়েছেন দু‌জন। যে বাড়িতে তাঁরা থাকতেন, আপাতত সেখানেই মেয়েকে নিয়ে থাকবেন কাইল। এর আগে মডেল লারা বিঙ্গেলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন ২০১৫ বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। কিন্তু ২০১০ সালে সেই সম্পর্কও ভেঙে গিয়েছিল ক্লার্কের। জানা গেছে, খুব শীঘ্রই এক জনপ্রিয় স্পোর্টস ব্রেকফাস্ট শোয়ে প্রাক্তন রাগবি লিগ তারকা লরি ড্যালের সঙ্গে দেখা যাবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩৬টি শতরান করা মাইকেল ক্লার্ককে। সঙ্গে ধারাভাষ্যের কাজ তো আছেই।‌

সুখের ছবি এখন অতীত। স্ত্রী–কন্যার সঙ্গে ক্লার্ক। ফাইল ছবি 

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top