আজকালের প্রতিবেদন: মরশুমের শুরুতেই বাংলার স্পিনারদের পরামর্শদাতার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল উৎপল চ্যাটার্জিকে। হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে রনজি ম্যাচে তাঁকেই স্পিনারদের দায়িত্বে নিয়ে আসা হল। বোলিং কোচের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল রণদেব বসুকে। আপাতত তিনি অনূর্ধ্ব ১৯ ও ২৩ দলের বোলিং কোচের দায়িত্ব সামলাবেন। মঙ্গলবার দুপুরে দল নির্বাচনী বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সচিব অভিষেক ডালমিয়ার কথায়, ‘‌রণদেব অনূর্ধ্ব ২৩ দলের সঙ্গে কাজ করবেন। বদলে কল্যাণীতে উৎপল চ্যাটার্জি দলের সঙ্গে যাবেন।’‌ হায়দরাবাদ ম্যাচের দলে তিনটি পরিবর্তন। চোটের জন্য নেই ঋত্বিক রায়চৌধুরি। বাদ পড়লেন বি অমিত, গোলাম মোস্তাফা। বদলে দলে নেওয়া হল ঋত্বিক চ্যাটার্জি, কাজি জুনেইদ সইফি ও নীলকণ্ঠ দাসকে।
১৯ তারিখ থেকে শুরু হতে যাওয়া হায়দরাবাদ ম্যাচ স্পিন সহায়ক কল্যাণীতে খেলার আর্জি জানিয়েছিল বাংলা টিম ম্যানেজমেন্ট। যুক্তি দেখানো হয়েছিল, অশোক দিন্দা, ঈশান পোড়েল নেই। ফলে অনভিজ্ঞ পেস বিভাগকে চাপের মুখে না ফেলে, বরং স্পিনের জালে বিপক্ষকে পেড়ে ফেলার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। টিম ম্যানেজমেন্টের অনুরোধ মেনে আগেই ইডেন থেকে কল্যাণীতে ম্যাচ সরিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু নাগপুরে গত ম্যাচে স্পিন সহায়ক উইকেটে বিদর্ভের বিরুদ্ধে বাংলার মুখ থুবড়ে পড়ায় বিরক্ত সিএবির শীর্ষকর্তারা। সোমবার রাতে কোচ অরুণলাল ও দলের ক্রিকেট অপারেশন ম্যানেজার জয়দীপ মুখার্জিকে ডেকে পাঠিয়ে ব্যর্থতার ব্যাখ্যাও চাওয়া হয়। সূত্রের খবর, স্পিন সহায়ক উইকেটে টস জিতেও কেন সাফল্য আসেনি?‌ ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি স্পিনাররা কেন ব্যর্থ?‌ এইসব প্রশ্নের কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি অরুণলালরা। বরং শুনতে হয়েছে, এরকম উইকেটেই তো পরের দুটো হোম ম্যাচ খেলতে চাইছেন আপনারা।
সূত্রের খবর, এদিনের দল নির্বাচনী বৈঠকে টিম ম্যানেজমেন্টকে অনুরোধ করার কোনও সুযোগই দেওয়া হয়নি। বোলিং কোচ রণদেবকে নিয়ে অস্বস্তি এবং গত ম্যাচে স্পিনারদের সাফল্য না পাওয়া। সবকিছু মাথায় রেখেই কল্যাণী ম্যাচে উৎপলকে দায়িত্ব দিয়ে পাঠানো।
দল:‌ অভিমন্যু (‌অধিনায়ক)‌, মনোজ, অনুষ্টুপ, শ্রীবৎস, অভিষেক, অর্ণব, কৌশিক, শাহবাজ, ঋত্বিক চ্যাটার্জি, মুকেশ, আকাশ দীপ, অয়ন, শ্রেয়ান, কাজি জুনেইদ সইফি, নীলকণ্ঠ দাস।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top