নজরুল ইসলাম, কল্যাণী: কল্যাণীর বেঙ্গল ক্রিকেট অ্যাকাডেমির মাঠে প্রথম দু’‌দিন ‘‌মনোজ শো’‌–এর পর তৃতীয় দিন ভাগ করে নিলেন শাহবাজ আমেদ এবং আকাশ দীপ। মঙ্গলবার তরুণ বাঁহাতি স্পিনার শাহবাজ দুরন্ত বল করে ঢুকে গেলেন বাংলার হ্যাট্রটিক ক্লাবে। মনোজ বুঝিয়ে দিলেন, তিনি গ্লাভস হাতে উইকেটের পেছনেও সমান সাবলীল। আর হায়দরাবাদকে দ্বিতীয় ইনিংসে ভাঙলেন আকাশ দীপ।
কল্যাণীর বাইশ গজ দেখে অরুণলাল আশঙ্কা করেছিলেন, ম্যাচের ফয়সালা হবে তো?‌ তঁার বোলাররা তিনদিনেই ম্যাচ শেষ করে দিলেন। বাংলার জয় ইনিংস এবং ৩০৩ রানে। মরশুমে প্রথম ৭ পয়েন্ট। ৫ ম্যাচে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াইয়ে দারুণভাবে থাকলেন অভিমন্যুরা।  
বাংলা–হায়দরাবাদ রনজি ম্যাচের তৃতীয় দিন কিপিং করার সময় হাঁটুতে চোট পান শ্রীবৎস। দলে অনুষ্টুপ মজুমদার, অভিষেক রামনের মতো পার্টটাইম কিপার থাকতেও উইকেটের পেছনে দাঁড়ান মনোজ। পেসার–স্পিনার সমান দক্ষতায় সামলালেন। দু’টি রান আউট ছাড়া ক্যাচও নিলেন। পরে বললেন, ‘‌কিপিং করতে ভাল লাগে। শ্রীবৎস উঠে যাওয়ার পর ঠিক করি ৫–৬ ওভার কিপ করে দেখি। না পারলে রামনকে ছেড়ে দেব। তবে দারুণ উপভোগ করেছি।’‌ অরুণলালও বললেন, ‘‌একবারও মনে হয়নি পার্টটাইম কিপার।’‌
আগের দিনের ৮৩/‌৫ নিয়ে খেলা শুরু করে হায়দরাবাদ। প্রথম ওভারেই অধিনায়ক তন্ময় আগরওয়ালকে (‌১০)‌ তুলে নেন মুকেশ কুমার। জাভেদ আলি ও সাকেতের জুটিতে ওঠে ৬১। সাকেতকে (‌১৯)‌ তুলে নিয়ে জুটি ভাঙেন শাহবাজ। নিজের নবম ওভারে প্রথম বলে জাভেদের (‌৭২)‌ অফ স্টাম্প ছিটকে দেন। পরের দু’টি এলবিডব্লিউ। ফেরান রবি কিরণ (০‌)‌ ও সুমন্থকে (‌৮)‌। রনজিতে বাংলার সপ্তম হ্যাটট্রিক।
হায়দরাবাদকে ফলো অন করিয়ে দ্বিতীয় ওভারেই তন্ময়কে (‌৫)‌ ফেরান আকাশ। রাহুল বুদ্ধিকে (‌০)‌ তুলে নিয়ে হায়দরাবাদকে আরও চাপে ফেলেন। শাহবাজ ফেরান অক্ষত রেড্ডিকে (‌২০)‌। পয়েন্টে অভিমন্যুর হাতে বল দেখেও রান নিতে গিয়ে জাভেদ (‌১৩)‌ ‘‌আত্মহত্যা’‌ না করলে ম্যাচ আর একটু গড়াত। হায়দরাবাদ গুটিয়ে যায় ১৬১ রানে। কিছুটা লড়াই করেন রবি তেজা (‌৫৩)‌। ব্যাটিং–সহায়ক উইকেটে আকাশ প্রথম ইনিংসে ৩ উইকেটের পর দ্বিতীয় ইনিংসে নেন ৩৮ রানে ৪ উইকেট। ম্যাচে ১০৪ রানে ৭ উইকেট। খুশি অরুণলাল বলেন, ‘‌যতটা স্পিন করবে ভেবেছিলাম করেনি। জোরে বোলারদের ধন্যবাদ। ওদের জন্যই ম্যাচ জিতলাম। এই দলে ঈশান পোড়েল এলে দেশের অন্যতম সেরা বোলিং অ্যাটাক হবে।’‌ পরের ম্যাচ অভিমন্যুকে পাবে না বাংলা। মনোজকে নেতৃত্বে চান বাংলার কোচ।
স্কোর
বাংলা প্রথম ইনিংস:‌ ৬৩৫/‌৭ (‌ডিক্লেঃ)‌। 
হায়দরাবাদ প্রথম ইনিংস:‌ (‌আগের দিনের ৫ উইকেটে ৮৩ রানের পর)‌ জাবিদ আলি ব শাহবাজ ৭২, তন্ময় ব মুকেশ কুমার ১০, কোল্লা এলবিডব্লু ব শাহবাজ ৮, সাইরাম এলবিডব্লু ব শাহবাজ ১৯, মেহদি অপরাজিত ৬, রবি কিরণ এলবিডব্লু ব শাহবাজ ০, অতিরিক্ত ১১, মোট (‌৪৬.‌৩ ওভারে)‌ ১৭১। উইকেট পতন:‌ ৬/‌৮৩, ৭/‌১৪৪, ৮/‌১৭১, ৯/‌১৭১। বোলিং:‌ মুকেশ কুমার ১৫–৪–৩৭–৩, আকাশ দীপ ১৫–১–৬৬–৩, শাহবাজ ৮.‌৩–৩–২৬–৪, শ্রেয়ান ৩–০–১২–০, অর্ণব ৫–০–২১–০। 
হায়দরাবাদ দ্বিতীয় ইনিংস:‌ তন্ময় এলবিডব্লু ব আকাশ দীপ ৫, অক্ষত রেড্ডি ব শাহবাজ ২০, রাহুল এলবিডব্লু ব আকাশ দীপ ০, জাবিদ আলি রান আউট ১৩, সন্দীপ ব অর্ণব ১৮, রবি তেজা ক মনোজ ব মুকেশ কুমার ৫৩, সাইরাম অপরাজিত ১১, কোল্লা ব আকাশ দীপ ৫, ত্যাগরাজন এলবিডব্লু ব আকাশ দীপ ৪, মেহদি রান আউট ০, রবি কিরণ ক সাইফি ব শাহবাজ ১৭, অতিরিক্ত ১৫, মোট (‌৪৬.‌২ ওভারে)‌ ১৬১। উইকেট পতন:‌ ১/‌১১, ২/‌১৭, ৩/‌৩৯, ৪/‌৫৬, ৫/‌৯২, ৬/‌১৩৪, ৭/‌১৩৯, ৮/‌১৪৩, ৯/‌১৪৩। বোলিং:‌ মুকেশ কুমার ১১–৩–২৯–১, আকাশ দীপ ৯–১–৩৮–৪, শাহবাজ ১১.‌২–২–৫১–২, অর্ণব ১০–৩–১০–১, শ্রেয়ান ৫–১–১৯–০। 
  বাংলা জয়ী ইনিংস ও ৩০৩ রানে
  ম্যাচের সেরা:‌ মনোজ তেওয়ারি‌

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জনপ্রিয়

Back To Top