আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনার জেরে মার্চের শেষে দেশ জুড়ে জারি হয় লকডাউন। বন্ধ হয় কলকারখানা, দফতর, স্কুল, কলেজ। সেই সঙ্গে ঝাঁপ বন্ধ হয় শুটিং ফ্লোরেও। সিনেমা, টিভি সিরিয়াল— সবের কাজই স্থগিত। তারকারা হয়তো সেভাবে সমস্যায় পড়েননি। কিন্তু পার্শ্বচরিত্রের অভিনেতা, কলাকুশলীদের রোজগার একেবারেই বন্ধ। সংসার টানতে নাভিশ্বাস উঠছে তাঁদের।
নাভিশ্বাস উঠছিল জাভেদ হায়দারেরও। তাই আর ঘরে বসে থাকতে পারেননি। পরিবারের মুখে ভাত জোগাতে মুম্বইয়ের পথে নেমেছেন। এখন সবজি বিক্রি করছেন তিনি। ছোট পর্দার আর এক জনপ্রিয় অভিনেত্রী ডলি বিন্দ্রা সেই ভিডিও তুলে পোস্ট করেন সোশাল সাইটে। লেখেন, ‘‌ও একজন অভিনেতা। আজ সবজি বিক্রি করতে বাধ্য হয়েছে।’‌ নিমেষে ভাইরাল হয়ে যায়। 
শিশু অভিনেতা হিসেবে বলিউডে আবির্ভাব জাভেদের। আমির খানের ‘‌গুলাম’‌ ছবিতে দেখা গেছিল তাঁকে। ‘‌লাইফ কি এ্যায়সি কি ত্যায়সি’‌, ‘‌বাবর’‌ ছবিতেও অভিনয় করেছেন। একের পর এক ধারাবাহিকেও দেখা গেছে তাঁকে। ২০১২ সালে ‘‌জিনি অর জুজু’‌ পরিচিত দিয়েছিল তাঁকে। এখন সবজি বিক্রির ফাঁকেই টিকটক ভিডিও করে চলেন তিনি। ওই মাধ্যমে তাঁর ফলোয়ারের সংখ্যা ৯৭ হাজার। 
নেটিজেনরা অবশ্য তাঁর এই উদ্যোগের তারিফ করেছেন। জনৈকের পোস্ট, ‘‌অন্তত হেরে বসে থাকেননি তিনি। কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।’‌ আর এক জন কুর্নিশ জানিয়েছেন তাঁর ইতিবাচক মনোভাবকে। জাভেদ হায়দর একা নন। তাঁর মতোই ফল বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন আর এক অভিনেতা সোলাঙ্কি দিবাকর। ৩৫ বছরের এই অভিনেতা ‘‌হাওয়া’‌, ‘‌সোনচিড়িয়া’‌, ‘‌ড্রিম গার্ল’‌, ‘‌তিতলি’‌–র মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন। দুই সন্তানের মুখ চেয়ে এখন দিল্লির রাস্তায় ফল বিক্রি করছেন তিনি। 

জনপ্রিয়

Back To Top