আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌যৌন হেনস্থা হোক বা ধর্ষণ বা শ্লীলতাহানি। আক্রান্তকে সাহায্যের জন্য কেউই এগিয়ে আসেন না। পুলিস থেকে শুরু করে পথচারি সকলেই এড়িয়ে চলেন বিষয়টি। ধর্ষণ হওয়ার পর ধর্ষিতাকে সমাজের অদ্ভুত অদ্ভুত প্রশ্নের সামনে পড়তে হয় ।
লেবানিসের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এরকমই একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করল। যেখানে দেখা যাচ্ছে, ধর্ষিতাকে সাহায্য না করে পথচলতি মানুষ প্রশ্নের বাণ ছুঁড়ছে তাঁর ওপর। ‘‌শেম অন হু’‌ নামে ভিডিওটি ইতিমধ্যেই নেটিজেনদের মন জয় করেছে। ভিডিওতে মানাল নামের এক তরুণী ধর্ষিতার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। ভিডিওটি মিথ্যা হলেও বাস্তব সত্যটা সকলের সামনে তুলে ধরতে সফল হয়েছে এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটি। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, লাল রঙের ছোট স্কার্ট ও সাদা রঙের টপ পরে মানাল যখন সাহায্য চাইছেন, তখন পথচলতি পুরুষ–মহিলা তাঁকে জিজ্ঞাসা করছেন ‘‌আপনি কি মদ্যপ’‌ বা ‘‌আপনি কি মাদক খেয়েছেন’‌।

কিছু কিছু মহিলা ধর্ষণের বিষয়টি জানার পর তাঁকে বলছেন, ‘‌প্রকাশ্যে ধর্ষণের কথা জোরে জোরে বলবেন না।’‌ এমনকী এটাও অনেকে বলছেন, ‘‌কেউ হয়ত শারীরিক সম্পর্ক করে তাঁকে রাস্তায় ছেড়ে দিয়ে গিয়েছে।’‌ এত প্রশ্নের পরও একজনও সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেননি। 
ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, কেউ কেউ আক্রান্তের পোশাক নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। আবাদ নামে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তাদের এই ভিডিওর মাধ্যমে বাস্তবকে সকলের সামনে এনেছেন। আবাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সমাজের রূপ তুলে ধরতেই এই ভিডিও। ধর্ষিতার সঙ্গে কী ধরনের আচরণ করা হয়, তা দেখিয়েছে তারা। এবার হয়ত সমাজ কিছুটা হলেও বদলাবে। 

‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top