আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ থানায় অভিযোগ জানাতে এসেছেন মহিলা। তার সামনেই স্বমেহন করছেন পুলিশ ইনস্পেক্টর ভীষ্মপাল সিং যাদব। উত্তরপ্রদেশের ভাটনি থানার ঘটনা। সেই ভিডিও এখন ভাইরাল। চার ছেলে–মেয়ের বাবা, অভিযুক্ত ইনস্পেক্টর ফেরার। তাঁর হয়ে ক্ষমা চাইলেন পরিবার। 
১৯৮৮ ব্যাচের এই ইনস্পেক্টরকে সাসপেন্ড করেছেন দেওরিয়া জেলার সুপার শ্রীপতি মিশ্র। যদিও ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই ভীষ্মপাল ফেরার। তাঁকে খুঁজে দিতে পারলে ২৫ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে দেওরিয়া পুলিশ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৬৬ (‌জনগণের কর্মীর আইন অমান্য)‌‌, ৩৫৪এ (‌যৌন হেনস্থা)‌, ৫০৯ (‌মহিলার সম্মানহানি)‌ ধারায় এফআইআর হয়েছে। 
ভীষ্মপাল এটা জেলার ভাদোগাড়ি গ্রামের বাসিন্দা। দুই ছেলে এবং দুই মেয়ে রয়েছে তাঁর। এক জামাইও পুলিশে চাকরি করেন। ভাই মথুরায় ট্রাফিক পুলিশ। ৮০ বছরের বৃদ্ধ বাবা সরকারি স্কুলের শিক্ষক ছিলেন। সেই ভীষ্মপাল কীভাবে এ রকম কাণ্ড ঘটালেন, ভেবেই পাচ্ছে না পরিবার। তাঁর স্ত্রী জানালেন, ‘‌দুই মেয়ের সামনে কোনও দিন একটা খারাপ কথা বলেননি। ৩৫ বছরের বিবাহিত জীবনে মহিলাদের সামনে এ ধরনের আচরণ করতে দেখিনি কখনও। মঙ্গলবার সন্ধে থেকে ওঁর ফোন সুইচড অফ। কেউ জানে না কোথায় রয়েছেন। চিন্তা হচ্ছে।’‌ 
ভীষ্মপালের আর এক ছেলে দিল্লির সরকারি মেডিক্যাল কলেজে ডাক্তারি পড়ছেন। তাঁর কথায়, ‘‌আমাদের পরিবার স্তম্ভিত। কিন্তু বাবার এই কাজকে ঘৃণা করি। ওই মহিলার কাছেও ক্ষমা চাইছি। এখনও বুঝতে পারছি না, কেন বাবা এ রকম করলেন।’ অভিযুক্ত ইনস্পেক্টরের কাজের নিন্দা করেছেন ভাইও।  

জনপ্রিয়

Back To Top