Whatsapp: ‌জানুন এই ৮ নিয়ম!‌ না মানলে নিষিদ্ধ হতে পারে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট 

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন?‌ যদি করেন, তাহলে খুব সাবধানে করুন ব্যবহার।

কারণ হোয়াটসঅ্যাপের ওয়েবসাইট বলছে, ‘পরিষেবার নিয়মনীতি’ ভঙ্গ করলে অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ করে দেওয়া হতে পারে। সংস্থার ওয়েবসাইটে যে ৮টি বিষয়ের কথা উল্লেখ করা রয়েছে, জেনে নিন সেগুলি।

আরও পড়ুন:‌ দাবি মানার আশ্বাস কেন্দ্রের, আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন কৃষকরা


১.‌ আপনি যদি অন্য কারও নামে ফেক অ্যাকাউন্ট খোলেন। আর তা যদি হোয়াটসঅ্যাপ জানতে পারে। তাহলে সেই অ্যাকাউন্ট মুছে দেওয়া হবে।
২.‌ আপনি কারও কনট্যাক্ট লিস্টে নেই। কিন্তু তাঁকে অসংখ্য মেসেজ পাঠিয়েছেন। তাহলেও আপনার অ্যাকাউন্ট বন্ধ বা নিষিদ্ধ হতে পারে।
৩.‌ হোয়াটসঅ্যাপের বদলে কোনও থার্ড পার্টি অ্যাপ ব্যবহার করলেও বিপদে পড়তে হতে পারে। হোয়াটসঅ্যাপ ডেল্টা, জিবিহোয়াটসঅ্যাপ কিংবা হোয়াটসঅ্যাপ প্লাসের মতো অ্যাপ ব্যবহার করলেও আপনার অ্যাকাউন্টটি নিষিদ্ধ হতে পারে।
৪.‌ আপনি যদি অসংখ্য মানুষকে ব্লক করতে থাকেন, তাহলেও বিপদ। আপনার কনট্যাক্ট লিস্টে থাকুক বা না থাকুক, প্রচুর পরিমাণে অ্যাকাউন্টকে ব্লক করে দিলেও নিষিদ্ধ হতে পারে আপনার হোয়াটসঅ্যাপ।
৫.‌ আপনার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট নিয়ে একাধিক রিপোর্ট এলে বন্ধ হতে পারে অ্যাকাউন্ট।
৬.‌ যে কোনও বার্তা ফরওয়ার্ড করার আগে খুব সাবধানে থাকতে হবে। যদি অ্যান্ড্রয়েড ফোনে APK ফাইলের বেশে ম্যালওয়্যার কিংবা সন্দেহজনক লিঙ্ক লোকজনকে আপনি পাঠাতে থাকেন, তাহলেও কিন্তু অ্যাকাউন্টটি নিষিদ্ধ করতে পারে হোয়াটসঅ্যাপ।
৭.‌ এমনকি ‘বেআইনি, অশ্লীল, মানহানিকর, হুমকি, ঘৃণা উদ্রেককারী’ মেসেজ করলে কিংবা কাউকে বিরক্ত করলে বা ভয় দেখালেও আপনার অ্যাকাউন্ট বন্ধ হতে পারে।
৮.‌ ফেক মেসেজ নিয়ে থাকতে হবে সাবধানে। কোনও ধরনের হিংসায় প্ররোচনা দেওয়া ভিডিও বা ভুয়ো বার্তা ছড়ানো মেসেজ ফরওয়ার্ড করার আগে দশবার ভাবুন। এই ধরনের মেসেজ ফরওয়ার্ড করলে আপনার অ্যাকাউন্টটি নিষিদ্ধ হয়ে যেতে পারে। 

আকর্ষণীয় খবর