আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ভুয়ো খবর ছড়ানো এবং তা রুখতে অতিরিক্ত ব্যবস্থা নিতে পদক্ষেপ করল হোয়াটস্‌অ্যাপ। মঙ্গলবার হোয়াটস্‌অ্যাপ বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, তারা সারা বিশ্বের নানান ক্ষেত্রের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ২০টি দল গড়েছে। ওই দলে রয়েছেন ভারতীয় এবং ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিশেষজ্ঞরাও। প্রতিটি দল তাদের প্রকল্পের জন্য ৫০০০০ মার্কিন ডলার করে পাবে। কোম্পানি বিবৃতিতে আরও বলেছে, যেহেতু হোয়াটস্‌অ্যাপ সাধারণত দুজন মানুষ বা একটি গোষ্ঠীর মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে, সেহেতু তাদের মূল লক্ষ্য হবে ব্যবহারকারীদের এধরনের ভুয়ো খবর বা বার্তা সম্পর্কে বোঝানো যাতে তাঁরা সেগুলিকে কর্ণপাত না করেন। এছাড়া বিশাল সংখ্যক মানুষকে ভুয়ো খবর সম্পর্কে সচেতন করতে সংবাদপত্র, ম্যাগাজিন, অনলাইন ওয়েবসাইট সহ ১০০টি রেডিও স্টেশনে বিজ্ঞাপনও দেওয়া হচ্ছে। 
বিশেষজ্ঞরা খতিয়ে দেখবেন কীভাবে হোয়াটস্‌অ্যাপ ব্যবহারকারীরা তাঁদের ফোনে আসা বার্তা খুঁজে নিয়ে তা ছড়িয়ে দিচ্ছেন সমাজকে প্রভাবিত করতে, যার ফলে গণপ্রহারের মতো ঘটনা ঘটছে। শুধু ভারতেই হোয়াটস্‌অ্যাপের ভুয়ো বার্তায় ৩০ জনের প্রাণ গিয়েছে। দিল্লি হোয়াটস্‌অ্যাপ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছিল, এই সব ভুয়ো বার্তা যা সমাজকে প্রভাবিত করছে, সেগুলি ছড়ানো রুখতে কোম্পানি যেন যাবতীয় পদক্ষেপ করে।
ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের মধ্যে আছেন লন্ডন স্কুল অফ ইকোনমিক্স অ্যান্ড পলিটিক্যাল সায়েন্সের শকুন্তলা বানাজি এবং রামনাথ ভাট, বেঙ্গালুরুর একটি সংবাদমাধ্যমের দুই বিশেষজ্ঞ নিধি আগরওয়াল এবং নিহল পাসান্‌হা। এছাড়া সাইবার পিস ফাউন্ডেশনের রাঁচির সদর দপ্তরের মুখ্য তদন্তকারী বিনীত কুমার এবং আনন্দ রাজে, দিল্লির একটি স্বেচ্ছাসেবী সাইবার কাফে সংস্থার সভাপতি অমৃতা চৌধুরিও ওই ২০টি দলের সদস্যদের অন্যতম। এছাড়া ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপোর, স্পেন, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস্‌, নাইজেরিয়া, ইজরায়েল এবং মেক্সিকোর বিশেষজ্ঞরাও রয়েছেন ২০টি দলের সদস্য হিসেবে। 
      

জনপ্রিয়

Back To Top