আজকাল ওয়েবডেস্ক: বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বারবার বলেছেন গুজব ছড়াবেন না। অযথা আতঙ্কিত হবেন না। করোনাভাইরাস নিয়ে এই পরিস্থিতিতে সঠিক তথ্যের আপডেট এবং ভুল তথ্য শেয়ারের সীমাবদ্ধতা রুখতে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ফেসবুক এক বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এদিন যা নিজেই শেয়ার করলেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকেরবার্গ।
তিনি এক খোলা চিঠিতে লিখেছেন, ‘‌আগে মানুষকে সচেতন করতে হবে। স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত প্রায় ২০০ কোটি ইউজার, করোনাভাইরাস সংক্রান্ত তথ্য দিচ্ছেন ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামের মাধ্যমে। প্রায় ৩৫ কোটি ইউজার করোনা সম্পর্কে জানতে ক্লিক করছেন এখানে। তাই এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ভুল তথ্য প্রচার কমানোর জন্য আমরা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’‌
মার্চের শুরু থেকেই তাঁর সংস্থার খবরের সত্যতা যাচাই করার জন্য (ফ্যাক্ট–চেকিং) ১২টিরও বেশি নতুন দেশে কাজ শুরু করা হয়েছে। ৬০০টিরও বেশি ফ্যাক্ট–চেকিং সংস্থার সঙ্গে যুক্ত হয়ে ৫০টিরও বেশি ভাষায় করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিভিন্ন পোস্ট খুঁটিয়ে দেখছে ফেসবুক। যদি কোনও পোস্টে ভুয়ো অথবা ভুল তথ্য থাকে সেগুলি সংস্থা সরিয়ে দিচ্ছে। তিনি জানান, মার্চ মাসে সংস্থার নিয়োজিত ফ্যাক্ট–চেকাররা এই ধরণের প্রায় ৪,০০০–এর মতোও পোস্ট খুঁজে পেয়েছেন।
করোনাভাইরাস সম্পর্কিত ভুল তথ্য প্রকাশের জন্য ফ্যাক্ট–চেকারদের লেখা নিবন্ধগুলিতে ‘‌গেট দ্য ফ্যাক্টস’‌ নামে একটি নতুন ফিচার চালু করেছে সংস্থা। জুকেরবার্গ জানান, তাঁর সংস্থা খুব শীঘ্রই খবর হিসাবে আসা এমন লোকদের পোস্টগুলিও আলাদা করে দেখাতে শুরু করবে।

জনপ্রিয়

Back To Top