আজকাল ওয়েবডেস্ক‌: ‌২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে মহাকাশচারীদের মহাকাশে পাঠাতে চায় ভারত। এমনটাই জানালেন ইসরোর প্রধান কে সিভান। তিনি জানান, এই গগনযান অভিযান সফল হলে গোটা পৃথিবীর মধ্যে  মহাকাশ চর্চায় অনেকটা এগিয়ে যাবে ভারত। মহাকাশে মানুষ পাঠানোর জন্য ভারত বিশ্বের মধ্যে চতুর্থ স্থানে থাকবে। তিনি আরও জানিয়েছেন যে এ বছরের এপ্রিলের মাঝামাঝি সময়ে চন্দ্রযান–২–এর অভিযানও হবে। যা ভারতের দ্বিতীয় চন্দ্রভিযান।
এই বিষয়টি প্রথম জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ২০১৮ সালে লালকেল্লা থেকে স্বাধীনতা দিবসের ভাষণ  দিতে গিয়ে মহাকাশে মানুষ পাঠানোর কথা বলেন তিনি। মোদি বলেছিলেন, ‘‌ভারতের ছেলে বা মেয়ে ২০২২ সালেই মহাকাশে যাবেন।’‌ ইসরো প্রধান কে সিভান বলেন, ‘‌গগনযানের প্রাথমিক প্রশিক্ষণ ভারতে হবে এবং চূড়ান্ত প্রশিক্ষণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে রাশিয়াতে। মহিলা মহাকাশচারীরা ওই দলে থাকবেন। এটাই আমাদের লক্ষ্য। ভারত থেকে মহাকাশচারীদের বাছাই করা হবে। গত মাসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় ২০২২ সালে মহাকাশে যাবেন মহাকাশচারীরা। এই বৈঠকের পর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানান, ২০২২ সালে সাত দিনের জন্য মহাশূন্যে থাকবেন ভারতীয় মহাকাশচারীদের একটি দল। প্রকল্পের জন্য দশ হাজার কোটি টাকা খরচ ধার্য করা হয়েছে। এখন থেকেই ঠিক করা হয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রী হরিকোটা থেকেই বড় রকেটে চড়ে মহাকাশে উড়ে যাবেন মহাকাশচারীরা। তাছাড়া এই অভিযান যাতে সফল হয় তার জন্য  ফ্রান্স এবং রাশিয়া  ভারতকে সাহায্য করবে বলে জানা গিয়েছে।
‘হিউম্যান স্পেস ফ্লাইট’‌ নির্মাণ করতে এ পর্যন্ত ১৭৩ কোটি টাকা খরচ করেছে ভারত। মহাকাশ অভিযান নিয়ে এখন বিস্তারিত আলোচনা হলে বিষয়টি প্রথম প্রকাশ্যে  আসে ২০০৮ সালে। কিন্তু  আর্থিক মন্দা এবং আরও  কয়েকটি কারণে অভিযান এত বছর পিছিয়ে গিয়েছিল। 

জনপ্রিয়

Back To Top