আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন বা আইটিইউ–র একটি প্রযুক্তি দল ৫জি রেডিও ইন্টারফেস টেকনোলজি বা আরআইটি–র স্বীকৃতি চেয়ে জমা দেওয়া দরখাস্তে অনুমোদন দেয় গত ৯ তারিখ। ডিওটি অনুমোদিত, স্বশাসিত সংস্থা, ভারতের টেলিকম স্ট্যান্ডার্ডস্‌ ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি বা টিএসডিএসআই–এর আরআইটি ৩জিপিপি–র দরখাস্তের সঙ্গেই ৫জির জন্যও ওই দরখাস্ত জমা দেয়।
এক্ষেত্রে টিএসডিএসআই আরআইটি–র উল্লেখযোগ্য বিষয় হল এটা ৩জিপিপি আরআইটি–কে আরও উন্নত করে ডিজিটাল বিভাজন মেটাবে। গ্রামীণ ভারতে আইটিইউ–র লো মোবিলিটি লার্জ সেল বা এলএমএলসি যাতে ভালোভাবে কাজ করতে পারে। প্রতিটি ক্ষেত্রে ৩জিপিপি আরআইটি–র সঙ্গে পুরোদস্তুর সঙ্গতি রেখেই ভারতীয় গবেষকরা এই আবিষ্কার করেছেন। ভারতীয় গবেষকদের এই অসাধারণ কাজের ফলেই ৫জি নেটওয়র্ককে বিশ্বের তামাম গরিব মানুষদের কাছেও পৌঁছে দেওয়া সম্ভবপর হচ্ছে বলে মনে করছেন প্রযুক্তিবিদরা।
প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে ছয় কিলোমিটার ব্যাসার্ধ পর্যন্ত লো–স্পিড মোবিলিটি এবং লার্জ সেলে ভালোভাবেই কাজ করবে ৫জি প্রযুক্তি। দেশীয় পদ্ধতিতে ৫জি ব্রডব্যান্ডকে সহজলভ্য করে গ্রামীণ ভারতের অপ্টিক্যাল ফাইবার নেটওয়র্ক ‘‌ভারতনেট’–কে আরও উন্নত করে দিয়ে ডিজিটাল বিভাজন প্রাথমিকভাবে পুরোপুরি মিটিয়ে ফেলতে চাইছে টিএসডিএসআই আরআইটি। তাহলে যে গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি ‘‌ভারতনেট’–এর সঙ্গে যুক্ত, সেগুলির প্রায় ৯৫ শতাংশই এর বেস স্টেশনের কভারেজের আওতায় চলে আসবে। সাধারণত এখন আইটিইউ–র এলএমএলসি মাত্র তিন কিলোমিটার ব্যাসার্ধ অঞ্চলই কভার করে। অথচ দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি ৩জিপিপি আরআইটি–কে আরও উন্নত করে ৫জি–র সঙ্গে ডিজিটালি সংযোগের এই ব্যবস্থায় আরও বেশি এলাকা এর আওতায় চলে আসবে।  

জনপ্রিয়

Back To Top