আজকাল ওয়েবডেস্ক: সানগ্লাসে হলোগ্রাফিক আইকন, বা ডিজিটাল স্ক্রিন এবং অ্যানালগ কাঁটাওয়ালা স্মার্ট ওয়াচ্‌। অথবা টেম্পোরারি ট্যাটু যেটা শরীরকেই টাচ্‌প্যাড করে দিতে পারে। বা ভার্চুয়াল রিয়েলিটি কন্ট্রোলার বা ভিআরসি, যেটা ডিজিটাল দুনিয়ায় কোনও কিছু খুঁজে নিতে সাহায্য করবে। শ্বেতপত্র এবং ডেমো ডিভিওর মাধ্যমে এমনই সব নতুন কিছু প্রকল্প তৈরি করছে গুগল্‌। যাতে আগামী প্রজন্মকে ডিজিটালি আরও উন্নত এবং আধুনিক করা যায়।
গুগল্‌–এর ইন্টার‌্যাকশন ল্যব তৈরি করেছে সানগ্লাস এবং স্মার্টওয়াচ। যাতে শারীরিকভাবেও ডিজিটালি উন্নত থাকা যায়। গুগল্‌–এর হার্ডওয়্যার বিভাগের মধ্যেই ২০১৫–য় তৈরি হয়েছিল এই ল্যাব। তার দুবছর পর সেটা কোম্পানির গবেষণা শাখার সঙ্গে যুক্ত হয়ে যায়। ল্যাবের নেতা অ্যালেক্স ওলওয়াল। এই ল্যাবের মূল উদ্দেশ্যই হল প্রযুক্তিগতভাবে আধুনিক জিনিসপত্র তৈরি করা।
বাকিগুলি সারা বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে তৈরি করছে গুগল্‌। ভিআরসি এবং স্মার্ট ট্যাটুর আংশিক অর্থ দিচ্ছে গুগল্‌ ফ্যাকাল্টি রিসার্চ অ্যাওয়ার্ডস্‌ যেটা কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং–এ অনুদান দিয়ে সাহায্য করে। গুগল্‌ এবং ওলওয়াল নিজে বলেছেন, তাঁদের কোম্পানি হয় কিছু জিনিস তৈরি করেছে, নাহলে কিছু জিনিস তৈরিতে টাকা ঢেলেছে। এই গবেষণা আগামী দিনে গুগল্‌–কে অন্য অনেক প্রতিযোগীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অনেকটাই এগিয়ে রাখবে বলেই মনে করছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা।  

জনপ্রিয়

Back To Top