আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সর্বনাশ! কোথায় জানতে চাইছেন? গুগলে.. মনে রাখবেন কোথায় জানতে চাইছেন সে বিষয়ে অবগত থাকার প্রয়োজন আছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কোনও তথ্য দরকার হলে বা মনে প্রশ্ন জাগলে আমরা গুগলে সার্চ অপশনে গিয়ে টাইপ করে বসি। সেটা রান্নার রেসিপি হোক অথবা আমাজনের কাস্টোমার কেয়ার সেন্টারের নম্বর, সবেতেই আমাদের পরম ভরসার স্থল গুগল। কিন্তু জানেন কি, সুরক্ষার খাতিরে গুগলে একাধিক জিনিস সার্চ না করাই শ্রেয়? কারণ, মনে রাখবেন গুগল কিন্তু নিজে কোনও কন্টেন্ট লেখে না। কিওয়ার্ডের মাধ্যমে গুগলে সার্চ করলে উঠে আসে বিভিন্ন ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট।
ফলে, সঠিক URL না জানলে ব্যাঙ্কের নাম করে নেট ব্যাঙ্কিংয়ের জন্য ওয়েব সাইট সার্চ করবেন না। আপনি যে ব্যাঙ্কে লেনদেন করেন তাদের অনলাইন ঠিকানা জেনে রাখা উচিত। ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটের আদলে ‘ফিশিং সাইট’ও রয়েছে অনেক। তাই জানা না থাকলে ভুল করে এই সাইটে ঢুকে আপনার গোপন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের আইডি-পাসওয়ার্ড নথিভুক্ত করলেই বিপদ নিশ্চিত।
গুগলে কখনও কোনও সংস্থার কাস্টমার কেয়ার নম্বর সার্চ করাও উচিত না। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ভুল নম্বর থাকে এখানে। বহু ক্ষেত্রে এইসব নম্বরে ফোন করলে আপনার মারাত্মক বিপদ হতে পারে। বরং নির্দিষ্ট সাইটের ‘কন্ট্যাক্টে’ গিয়ে কাস্টোমার কেয়ারের নম্বর জোগার করুন। অনলাইনে বিভিন্ন ভুয়ো নম্বরও থাকে। সেইসব নম্বরে ফোন করে অনেকে প্রতারিতও হয়েছেন।
স্ক্যামারাদের সবচেয়ে বড় লক্ষণ থাকে সরকারি ওয়েবসাইট। লাইসেন্সের আবেদন হোক বা অনলাইনে সরকারি ডেথ সার্টিফিকেট বা পুরসভার কোনো ওয়েবসাইট খুঁজতেও গুগলে সার্চ করবেন না। গুগল সার্চে পাওয়া অনেক ওয়েবসাইট যথাযথ মনে হলেও তা আদপে প্রতারণার ডেরা হতে পারে।
ই–কমার্স ওয়েবসাইটে ঢুকতে গেলেও কখনও গুগলে সার্চ করবেন না বা সেখান থেকে জিনিস কিনবেন না। এরজন্য নির্দিষ্ট সাইটে ঢুকে তারপরই আপনি কেনাকাটা করুন। কারণ, হুবহু একই রকম দেখতে মনে হলেও বহু ক্ষেত্রে হ্যাকারদের ফাঁদ পাতা থাকে। আর সেই ফাঁদে পা দিলেই নিশ্চিত বিপদ।
আপনার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে অবৈধ কারবারিরা। অ্যান্টি ভাইরাস সার্চের ক্ষেত্রেও গুগল যা দেখাবে তা নিরাপদ না। অধিকাংশ ক্ষেত্রে আপনার অজান্তেই ডিভাইসে ঢুকে পড়বে বিপদজনক ভাইরাস।

জনপ্রিয়

Back To Top