আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় ল্যান্ডার চন্দ্রপৃষ্ঠে হার্ড ল্যান্ডিং বা কঠিন অবতরণ হয় তার। নাসা জানিয়ে দিয়েছে, মার্কিন মহাকাশ সংস্থার বিজ্ঞানীদের একটি দল এখনও বিক্রম ল্যান্ডার ঠিক কোথায় আছে তা শনাক্ত করতে সক্ষম হয়নি। চন্দ্রযান–২–এর ল্যান্ডার, বিক্রম, সিম্পেলিয়াস এন এবং মঞ্জিনাস সি ক্রাটারের মধ্যে চন্দ্রপৃষ্ঠের উঁচু জমির মধ্যেই তুলনামূলকভাবে মসৃণ সমভূমির একটি ছোট জায়গায় ৭ সেপ্টেম্বর অবতরণের চেষ্টা করেছিল। বিক্রমের এটি অত্যন্ত কঠিন অবতরণ ছিল। তবে চন্দ্রপৃষ্ঠের উঁচুজমিতে মহাকাশযানের ওই ল্যান্ডারটির অবস্থান এখনও নির্ধারণ করা যায়নি। কারণ মনে করা হচ্ছে, ছায়াপথে ঢাকা পড়ে গিয়েছে চন্দ্রযানের–২–এর ল্যান্ডার। এমনই বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে নাসা।
বিক্রম ল্যান্ডারের লক্ষ্যস্থল ওই অবতরণের জায়গার ছবিও প্রকাশ করেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটি, যেখানে চন্দ্রপৃষ্ঠের গর্তগুলিকে দেখা যাচ্ছে। ওই ছবিগুলি নাসার লুনার রিকনোসান্স অরবিটার (এলআরও) ১৭ সেপ্টেম্বর মহাকাশযানটির ফ্লাইবাইয়ের সময় তুলে ছিল। যদিও এই ছবি থেকে ল্যান্ডারটি শনাক্ত করা যায়ন বলে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা একটি টুইটে জানিয়েছে। তবে অক্টোবরে মুন অরবিটার আবার ল্যান্ডারটিকে শনাক্ত এবং চিত্র দেওয়ার চেষ্টা করবে।
১ হাজার কোটি টাকার চন্দ্রযান–২ মিশন সফল করে ইতিহাসের পাতায় নাম তোলার আশা ছিল ভারতের। ধীরে ধীরে চাঁদের পৃষ্ঠে অবতরণ সফল হলে আমেরিকা, রাশিয়া এবং চীনের পরেই চতুর্থ দেশ হত ভারত। পাশাপাশি প্রথমবারের চেষ্টাতেই চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পৌঁছনোর ক্ষেত্রে প্রথম দেশ হত ভারত।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top