ঔজ্জ্বল্য কমে বাড়ে, ছায়াপথে নতুন প্রজাতির নক্ষত্রের সন্ধান পেলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা

আজকাল ওয়েবডেস্ক: নতুন প্রজাতির নক্ষত্র আবিষ্কৃত হল কি! আন্তর্জাতিক জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের একটি দলের আবিষ্কার কিন্তু সেরকমই ইঙ্গিত করছে। ২৫০০০ আলোকবর্ষ দূরে আকাশগঙ্গা ছায়াপথে (মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সি) একটি তারার সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। সেটি রীতিমতো মিটমিট করছে। অথচ কিছুদিন আগেই ঔজ্জ্বল্য কমতে কমতে প্রায় নিশ্চিহ্ন হতে বসেছিল সেটি। তারাটির নাম দেওয়া হয়েছে ভিভিভি-ডব্লুআইটি-০৮ (VVV-WIT-08)। বিজ্ঞানীরা বলছেন, একটি নক্ষত্রের এরকম উজ্জ্বলতা কমতে কমতে আবার চকমকে হয়ে ওঠা অত্যন্ত বিরল ঘটনা।
কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞান বিভাগের ডঃ লেই স্মিথ এই গবেষণার প্রধান। তাঁর সঙ্গে রয়েছেন এডিনবরা, হের্টফোর্ডশায়ার এবং পোল্যান্ডের ওয়ারশ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরাও। তাঁরা মনে করছেন, সম্ভবত আরও একটি বড় তারা অথবা গ্রহ একই সরলরেখায় চলে আসায় আদতে তারাটির গ্রহণ হয়েছিল। কিন্তু সেটি আলোকজ্জ্বল নয়। এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডঃ সের্গেই কোপোসভ বলছেন, 'আবিষ্কৃত তারা এবং পৃথিবীর মধ্যে দিয়ে একটা বিশাল অন্ধকারময় বস্তু চলে গেছে, এটা দারুণ বিষয়। এর উৎস কী তা নিয়ে এখন আমরা শুধু কল্পনাই করতে পারি।' ব্রিটেন-স্থিত বিজ্ঞানীরা ভিভিভি-ডব্লুআইটি-০৮ এর মতো আরও দুটো অদ্ভুত দৈত্যাকার তারার খোঁজ পেয়েছেন। তাঁদের ধারণা, সম্ভবত মিটমিট করা তারাদের এক নতুন প্রজাতির সন্ধান পাওয়া গেছে।