আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তটরেখা গাঢ় সবুজ। লেকের জল স্নিগ্ধ। ওপারে বরফে ঢাকা পাহাড়। একটি পড়ন্ত বিকেলের ছবি। অস্ত যাওয়ার ঠিক আগের মুহূর্তে শেষ আভাটুকু দিয়ে গোটা আকাশ উজার করে দিয়েছে সূর্য। দিগন্তজুড়ে রঙের খেলা। হলুদ থেকে কমলা। কমলা থেকে টুকটুকে লাল হওয়ার দিকে যাত্রা। বেগুনি–গোলাপি রঙের একটি হালকা স্তরও রয়েছে। সবকটা রঙের মিশ্রণ পাহাড়ের গায়ে একটি আস্তরণ তৈরি করেছে। এমন একটি ছবি দেখতে যতটা সুন্দর, ততটাই বিপজ্জনক। বিপজ্জনক আপনার ফোনের জন্য। ছবিটি ওয়ালপেপারে লাগালেই আপনার ফোনটি কাজ করা বন্ধ করে দেবে। নিজে থেকেই বন্ধ হবে আবার নিজে থেকেই ‘‌অন’ হবে। ‘‌ভূতুরে’‌ ছবিটি নিয়ে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া। অনেকে বলছেন, ‘‌ছবিটায় ভাইরাস আছে’। ‌হট্টগোল দেখে মুখ খুলতে বাধ্য হন ছবিগ্রাহক গৌরব অগ্রওয়াল। স্যান দিয়েগোর বিজ্ঞানী তিনি। ফাঁক পেলে ছবিও তোলেন। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘‌বিবিসি’–কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে স্ত্রী–এর সঙ্গে মন্টানার গ্লেসিয়ার ন্যাশনাল পার্কে বেড়াতে‌ গিয়েছিলেন। সেখানে সেন্ট মেরি লেকের একটি ছবি তুলেছিলেন তিনি। বাড়ি ফিরে ‘‌অ্যাডোবি লাইটরুম’‌ সফ্টওয়্যারে ছবিটি এডিট করেন। তারপর সেটি ‘‌ফ্লিকার’ নামক ওয়েবসাইটে আপলোড করেন। কিন্তু কী কারণে ছবিটির জন্য ফোনে গোলমাল হচ্ছে, জানেন না তিনি!‌ বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, ছবিটিতে রঙের যে মিশ্রণ ব্যবহার করা হয়েছে, তা অনেক ফোনেই ‘‌সাপোর্ট’‌ করছে না। অ্যান্ড্রয়েড ১০ বা গুগল পিক্সেলের অনেক মডেল সহজে রঙ চিহ্নিত করতে পারে না। ফলে সঠিকভাবে ‘‌কালার স্পেস’‌ বা রঙের স্তর সাজাতেও পারে না। তখন ফোন হ্যাং করতে পারে। এই ছবিটির ক্ষেত্রেও তাই ঘটেছে। ছবির ‘‌কালার টোন’‌ সেট করার জন্য লাইটরুম সফ্টওয়্যারে অনেক প্রিসেট দেওয়া থাকে। ছবিগ্রাহক রঙের যে মিশ্রণ ব্যবহার করেছেন, তা অনেক অ্যান্ড্রয়েড ফোনে হয়ত সাপোর্ট করছে না।  

জনপ্রিয়

Back To Top