বিশ্বনাথ ভট্টাচার্য‌‌‌‌‌‌: ‌নদিয়ার আলমডাঙায় আশি বছর আগে জন্মেছিলেন এক ভবঘুরে। ১৯৪৭–এ জন্মভূমি পড়ল পূর্ব পাকিস্তানে। শুরু হল উদ্বাস্তু জীবন। বাড়ির ভাষা ছিল ভোজপুরি ও বাংলা। জাতিতে রাজপুত। বাংলাকে আপন করে নিলেন। ১৯৬৬–’‌৯৫ বাংলা পড়িয়েছেন সেন্ট পলস কলেজে। এক সময় তা–ও ছেড়ে পথকেই আশ্রয় করেছিলেন রণজিৎ সিংহ। ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে বেড়িয়েছেন সুরের পিছু–পিছু। লোকগানের আবহে খুঁজে বেড়িয়েছেন প্রাণের মানুষকে। ‘মীরা মুখোপাধ্যায় বস্তারে খুঁজেছিলেন বিশ্বকর্মাদের আর রণজিৎ খুঁজেছেন পথের সরস্বতী।’‌ বললেন প্রকাশন সংস্থার মুখপাত্র সুমেরু মুখোপাধ্যায়।  প্রকাশিত গদ্যগ্রন্থ মাত্র চারটি। মাটির সুরের খোঁজে, বস্তার অরণ্যের সুর, দখিনা হাওয়া এবং কলকতায় রাস্তায় রাস্তায়। পায়ে হেঁটে কলকাতা দেখার সচিত্র বিবরণী অবশ্য তিনি দেখে যেতে পারেননি। এ ছাড়াও বিভিন্ন পত্র–পত্রিকায় ছড়িয়ে ছিল তাঁর নানা উজ্জ্বল লেখা। তাঁর অগ্রন্থিত পরিকল্পিত বইয়ের সংখ্যাও ছিল একাধিক। একদা রাহুল সাংকৃত্যায়নের ভবঘুরে শাস্ত্রের অনুবাদকের এহেন ছিটিয়ে থাকা লেখালিখি ‘রণজিৎ সিংহ গদ্য সংগ্রহ’ প্রকাশিত হতে চলেছে দু খণ্ডে ৯ঋকাল বুকস থেকে। সম্পাদনা করেছেন শ্রীকুমার চট্টোপাধ্যায়। প্রকাশক সামরান হুদা বললেন, ‘‌চলছে শেষ মুহূর্তের কাটাছেঁড়া। লেখার সঙ্গে আছে খালেদ চৌধুরীর ড্রইং। অসংখ্য। রণজিতের ক্যামেরাবন্দি পুরনো কলকাতার ছবি।’‌ প্রচ্ছদ করেছেন এ এফ এম মনিরুজ্জমান শিপু।‌‌ দাম ৫০০ টাকা।‌ ■

জনপ্রিয়

Back To Top