আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নয় নয় করে বয়স ৭০০ বছর গড়িয়ে গিয়েছে। ইতিহাসের গড়েছে, ইতিহাস ভেঙেছে তার সামনেই। যুগের পর যুগ ধরে একাধিক ঘটনা প্রবহমান সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে বৃক্ষটি। তিন একর জায়গা জুড়ে রয়েছে তার বিস্তৃতি। খ্যাতি আজও অমলিন। সেই বৃদ্ধ প্রাচীণ বটবৃক্ষের দর্শনে এখনও দূরদূরান্তের পর্যটকরা হাজির হন তেলঙ্গানার মেহবুবনগরে। কিন্তু বয়সের ভারে ক্রমশ জীর্ণ হয়ে যাচ্ছে শিকড়। রোগ ব্যাধি বাসা বাঁধতে শুরু করেছে। প্রাচীণকে কোনওভাবেই ছাড়তে নারাজ মেহবুবনগর। রোগ ধরা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বটবৃক্ষের চিকিৎসা শুরু হয়ে গিয়েছে। তাবড় চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে গিয়েছেন। শিকড়ে নতুন করে প্রাণ সঞ্চারে চলছে চিকিৎসা। স্যালাইনের বোতলে কীটনাশক ভরে ধীরে ধীরে শিকড়ে প্রবেশ করানো হচ্ছে। মেহবুব নগরের জেলা শাসক রোনাল্ড রস নিজে তদারকি করছেন চিকিৎসার। তেলঙ্গানার বনদপ্তরের আধিকারিক বুধবার সরজমিনে ঘুরে দেখে গিয়েছেন বটবৃক্ষের চিকিৎসা। প্রতিদিনই চলছে খোঁজ খবর নেওয়া। যদি বাঁচে বটবুড়ো। 

জনপ্রিয়

Back To Top