আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বর্জ্য প্লাস্টিককে প্রক্রিয়াকরণ করে তা গিয়ে আস্ত একটি বাড়ি তৈরি করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে হায়দরাবাদের এক দম্পতি। নব্য শিল্পোদ্যোগী দম্পতি প্রশান্ত লিঙ্গম এবং অরুণা বাড়ির নকশা আঁকা, বাঁশ দিয়ে আসবাব তৈরিতে সিদ্ধহস্ত। প্রশান্ত জানালেন, ২০১৭ সালে একটি ভিডিও ফুটেজে চিকিৎসকদের একটি ষাঁড়ের পেট থেকে অস্ত্রপচার করে প্লাস্টিক বের করতে দেখে আতঙ্কিত হয়েই প্লাস্টিক নিয়ে গবেষণা শুরু করেন দুজন। যেহেতু দেশে পরিকাঠামোগত চাহিদা অত্যধিক বেড়ে গিয়েছে সেজন্য শুধু প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহার করেই বাড়ি বানানোর চিন্তা মথায় আসে প্রশান্ত–অরুণার।

তারপরই উপ্পলে সাত টন প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবহার করে ৮০০ বগ্রফুটের একটি বাড়ি তৈরি করেছেন দুজন। সারা শহরজুড়ে আপাতত এরকম পাঁচটি বাড়ি তৈরি করে ফেলেছে ওই দম্পতি। স্ট্রাকচারাল ওয়র্ল্ড কংগ্রেসের সহ সভাপতি এস পি আঞ্চুরি বাড়িগুলির স্থাপত্য এবং দীর্ঘস্থায়িত্ব নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করলেও প্রশান্তের আশ্বাস, প্লাস্টিকে তৈরি এই বাড়িগুলি ইট–পাথরে তৈরি বাড়ির মতোই মজবুত। জল, আগুন এবং তার নিরোধক। টিঁকে থাকে প্রায় ৪০ বছর পর্যন্ত। তাছাড়া যেখানে সাধারণ একটি বাড়ি তৈরির নূন্যতম খচ ৪০ লক্ষ টাকা সেখানে প্লাস্টিকে তৈরির বাড়িতে প্রতি বর্গফুটে খরচ হয় ৭০০ টাকা।
প্লাইউডকে প্লাস্টিকের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করেছেন তাঁরা।

দুধের প্যাকেট দিয়ে তৈরি করেছেন আসবাব, শৌচাগার, বেঞ্চ এবং বাসের যাত্রী প্রতীক্ষালয়ও। এর আগে প্লাস্টিক দিয়ে সিরসিলায় ৫৫টি এবং সিদ্দাপেটে ৪৫টি পরিবেশবান্ধব ছাউনি তৈরি করেছেন ফুটপাথে হকারদের বসার জন্য প্রশান্ত আরও জানালেন বেশ কিছু স্কুল তাঁদের প্লাস্টিক দিয়ে বেঞ্চ তৈরির বরাত দিয়েছে। বালতি, মগ, চেয়ার যে ধরনের শক্ত প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি হয়, সেই প্লাস্টিক দিয়ে ফুটপাথের টাইলস্‌ তৈরি করেছেন প্রশান্ত–অরুণা। এভাবে প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহারের জন্য হায়দরাবাদ পুরসভা জিএইচএমসি–র পক্ষ থেকে প্রচুর সহায়তা পাচ্ছেন তাঁরা। জানালেন প্রশান্ত।
ছবি:‌ এএনআই    

জনপ্রিয়

Back To Top