আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ১৬ নভেম্বর, ২০১৭। ৯২ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছিলেন তাইল্যান্ডের জনপ্রিয় বৌদ্ধ ধর্মগুরু লুয়াং ফোর পিয়াং। ব্যাংককেই একটি সমাধিস্থলে কবর দেওয়া হয়েছিল তাঁকে।

প্রথামাফিক, সমাহিত করার দু’‌মাস পরে মন্দিরে ফিরিয়ে আনার জন্য কবর থেকে তুলে আনা হয় লুয়াংয়ের দেহ। কিন্তু কবর খুলতেই চক্ষুচড়ক গাছ!‌ দেখা যায় লুয়াংয়ের শবটি হাসছে!‌ সঙ্গে সঙ্গে হইচই পড়ে যায় চারদিকে।

সংবাদমাধ্যম ও ভক্তদের ভিড় সামলাতে নাজেহাল হয়ে পড়ে মন্দির কর্তৃপক্ষ। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল হয়ে যায় লুয়াংয়ের হাসিমুখের ছবি। রটে যায়, অলৌকিক ক্ষমতার বলেই মৃত্যুর পরে হাসছে লুয়াংয়ের শব।

যদিও চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন এর মধ্যে কোনও অলৌকিক ব্যাপারই নেই। মৃত্যুর পরে মানবদেহের পেশিতে নানারকম বিকৃতি ঘটে। তার ফলে পেশি কুঁচকে যাওয়াটাও বিচিত্র কিছু নয়। লুয়াংয়ের ক্ষেত্রেও মুখের পেশি এমনভাবে বিকৃত হয়েছে, যাতে মনে হচ্ছে যে তিনি হাসছেন।

জনপ্রিয়

Back To Top