আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মাথায় হেলমেট। তার সামনে লাগানো ক্যামেরা। সেই ক্যামেরায় তাকালেই মাপা যাবে আপনার জ্বর। বিশ্বাস হচ্ছে না?‌ বিদেশ নয়, খাস এদেশেই এখন এই আধুনিক যন্ত্রের সাহায্যে জ্বর মাপা হচ্ছে। মহারাষ্ট্রের মুম্বই আর পুনেতে, যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা আকাশছোঁয়া। এই হেলমেট মাথায় পরে স্বাস্থ্যকর্মীরা এক মিনিটে ২০০ জনের জ্বর মেপে ফেলছেন। 
কোভিড–১৯ সংক্রমণের অন্যতম লক্ষণ জ্বর। সংক্রমণ হয়েছে কিনা, আগেভাগে বুঝতে এখন বিভিন্ন এলাকায়, এমনকী বাড়িতে বাড়িতে জ্বর মাপছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। একমাত্র এভাবেই রোখা যেতে পারে কোভিড। এবার কপালে ধরা থার্মোমিটারের সাহায্যে ঘণ্টায় ২০০ থেকে ৩০০ জনের বেশি জ্বর মাপা সম্ভব নয়। জনবহুল মুম্বইতে এক–একটি বস্তিতেই রয়েছে প্রায় ৬০০০ হাজার জন। এত জনের জ্বর মাপতে দু’‌–তিন দিন লেগে যাচ্ছিল। 
এবার সেই সমস্যারই সমাধান হল। এই স্মার্ট হেলমেটের মাধ্যমে এক সেকেন্ডে ১৩ থেকে ১৪ জনের জ্বর মাপা যায়। মিনিটে ২০০ জনের। হেলমেটের সামনে রয়েছে দু’‌টো ক্যামেরা। একটিতে সামনের জনের ছবি ওঠে। আর একটিতে শরীরের তাপমাত্রা মাপা হয়। হেলমেটের সঙ্গে সংযোগ রয়েছে হাতে পরা স্মার্টওয়াচের। সেই স্মার্টওয়াচেই দেখা যাচ্ছে, কত জ্বর। হেলমেটটি একসঙ্গে বহু মানুষের জ্বর মেপে সেই নথি বন্দি করে রাখছে স্মার্টওয়াচে। ৬৪ জিবি ডেটা স্টোর করতে পারে এই স্মার্ট হলেমেট। 
বৃহন্মুম্বই পুরসভাকে এ রকম চারটি হেলমেট দিয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইন্ডিয়ান জৈন সঙ্ঘ। এক–একটি হেলমেটের দাম ছ’‌ লক্ষ টাকা। উদ্দেশ্য একটাই, মুম্বইতে আক্রান্তের সংখ্যা শূন্যতে নামানো। আপাতত কন্টেইনমেন্ট জোনেই এই হেলমেটের সাহায্যে জ্বর মাপা হচ্ছে। স্বাস্থ্যকর্মী নিলু জৈন জানালেন, এখন আড়াই থেকে তিন ঘণ্টায় ৬,০০০ জনের জ্বর মাপা যাচ্ছে। এর আগে দুবাই, ইটালি, চীনে এই হেলমেট পরে জ্বর মাপা হয়েছে। এবার এর প্রয়োগ হল ভারতেও। 

জনপ্রিয়

Back To Top