আজকাল ওয়েবডেস্ক: মহারাষ্ট্রের বুলধানা জেলায় অবস্থিত লোনার হ্রদের জলের রং গত কয়েকদিনের মধ্যে বদলে গিয়েছে লালচে গোলাপি রঙে। যা দেখে অবাক স্থানীয় বাসিন্দারা। জলের রং বদলে যেতে দেখে চিন্তায় পড়েছিলেন পরিবেশবিদ এবং প্রাণীবিজ্ঞানীরা। লোনারের জেলাশাসক সৈফান নাদাফ জানান, বন দপ্তর জলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষাও করেছে। প্রাথমিক পরীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, জলে লবণাক্ত ভাব বেড়ে যাওয়ায় এবং অ্যাল্‌গির অতিরিক্ত উপস্থিতির ফলেই জলে এই রং বদল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর আগেও কয়েকবার লোনার হ্রদের জলের রঙে লালচে বা গোলাপি আভা দেখা গিয়েছিল। কিন্তু এবার রঙের আধিক্য বেশি।
প্রায় ৫০,০০০ বছর আগে উল্কাপিন্ড পড়ে যে গহ্বর তৈরি হয়েছিল তাই আজকের জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র লোনার হ্রদ। এই হ্রদের জলে লবণের পরিমাণ ১০.‌৫ পিএইচ। তাছাড়া হ্রদে প্রচুর অ্যাল্‌গি বা জলজ উদ্ভিদের বাস। লোনার হ্রদ সংরক্ষণ কমিটির সদস্য গজানন খারাট জানালেন, জলের একমিটার নিচেই কোনও অক্সিজেন মেলে না। বৃষ্টি না হওয়ায় হ্রদে জলের পরিমাণও কমে গিয়েছে। তুলনামূলকভাবে জল কমে যাওয়ায় লবণের পরিমাণ বেড়ে গিয়েছে হ্রদে। তার ফলেই হয়ত জলের রং গোলাপি হয়ে গিয়েছে। ইরানেও এধরনের একটি হ্রদ আছে, যার জলের রং মাঝেমাঝেই লালচে হয়ে যায় জলে লবণের পরিমাণ বেড়ে গেলে, বলছেন খারাট। ঔরঙ্গাবাদের বাবাসাহেব আম্বেডকর মারাঠাওয়াড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগের প্রধান মদন সূর্যবংশীর মতে, লকডাউনের জন্য এর মধ্যে ওই অঞ্চলে কোনও পর্যটকও যেতে পারেননি। ফলে মানুষের জন্য হ্রদের জলের রং বদল ঘটেনি। প্রাকৃতিক উপায়েই তা হয়েছে। ঋতু পরিবর্তনের পরও জলের রং না বদলালে ফের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হবে বলে জানালেন বিশেষজ্ঞ সূর্যবংশী।
ছবি:‌ এএনআই 

জনপ্রিয়

Back To Top