আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দুর্নীতি, হিংসা, স্বার্থপরতা আজ পৃথিবীর আনাচেকানাচে। কিন্তু এরই মাঝে আজও বেঁচে আছে মানবতা আর নিঃস্বার্থ ভালোবাসা। যে জন্য আজও হয়ত পৃথিবীটা বাসযোগ্য। সেই অপার মানবতার অন্যতম নিদর্শন জনি ববিট জুনিয়র। এক ভবঘুরে, যিনি নিজের শেষ সম্বল ২০ ডলার খরচ করেছিলেন এক সম্পূর্ণ অপরিচিতাকে সাহায্যের জন্য। অপরিচিত সেই দেবদূতকে সাহায্য করতে সোশ্যাল ওয়েবসাইট ‘‌গো ফান্ড মি’‌–তে অর্থ সংগ্রহে নেমেছেন কেট ম্যাকক্লিউর এবং তাঁর সঙ্গী মার্ক ডায়মিকো।  
গত অক্টোবরে নিজেই গাড়ি নিয়ে ফিলাডেলফিয়া যাচ্ছিলেন কেট ম্যাকক্লিউর। মাঝপথে গ্যাস ফুরিয়ে যায়। রাতের রাস্তায়, একা, অসহায় কেট যখন গাড়ি থেকে নেমে সাহায্যের আশায় ঘোরাফেরা করছিলেন, তখনই ফুটপাথ থেকে উঠে এসে তাঁর কাছে ঘটনা জানতে চান ভবঘুরে জনি ববিট। সমস্যা শুনে জনি কেটকে গাড়ির দরজা, জানলা বন্ধ করে বসতে বলে চলে যান। কিছুক্ষণ পর সিলিন্ডার নিয়ে ফেরেন। কেট বলেছেন, তিনি অবাক হয়ে গিয়েছিলেন এটা জেনে, যে ২০ ডলার দিয়ে এক অপরিচিতাকে গ্যাস কিনে দিলেন জনি, সেটাই তাঁর শেষ সম্বল ছিল। পরিবর্তে কেটের কাছে কোনও অর্থই চাননি জনি। 
এরপরই তাঁর দেবদূতের সাহায্যে উদ্যোগী হন কেট। এব্যাপারে তিনি পাশে পেয়েছেন বন্ধু মার্ককে। দুজনে সোশ্যাল ওয়েবসাইট ‘‌গো ফান্ড মি’–তে প্রচার শুরু করেন জনির হয়ে অর্থ সংগ্রহে। গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তাঁরা ২,৫২,০০০ মার্কিন ডলার জমিয়েছেন। একটি হোটেলে সপ্তাহান্তে জনির থাকার ব্যবস্থা করেছেন। এখন জনির জন্য স্থায়ী চাকরির সন্ধান করছেন। এই কয়েক সপ্তাহে তাঁরা খুব কাছ থেকে দেখেছেন জনিকে। তাঁর ২০ ডলার ফেরত দেওয়া ছাড়া যখনই জনির সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছেন, তাঁকে কিছু ডলার দিয়েছেন, জ্যাকেট, গ্লাভ্‌স, মোজা এবং টুপি দিয়েছেন আপাতত ব্যবহারের জন্য। কিছু শুকনো খাবার, জল এবং একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের দুটি গিফ্ট কার্ড দিয়েছেন। কেট বলেছেন, সেই খাবার থেকেও কেটকে ভাগ দিতে চেয়েছিলেন জনি। গিফ্ট কার্ড পেয়ে এতোটাই খুশি হয়েছিলেন যে তাঁর ভবঘুরে বন্ধুদের সঙ্গেও আলাপ করান কেটকে। 
তাঁরা জেনেছেন, ৩৪ বছরের জনি নর্থ ক্যারোলাইনার বাসিন্দা। বান্ধবী এবং পোষ্যদের নিয়ে ২০১৪ সালেও ছিলেন সুখী মানুষ। কিন্তু মাদকাসক্তির ফলে আজ কপর্দকশূন্য, গৃহহীন। গত দেড় বছর ধরে রাস্তাই তাঁর আশ্রয়। মাদকাসক্তির জন্য ২০০১ সালে একবার গ্রেপ্তারও হন। নর্থ ক্যারোলাইনার হেন্ডারসনে তাঁর আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাঁরা জনিকে নিয়ে মন্তব্য এড়িয়ে গিয়েছেন। তবে মার্ক বলেছেন, জনি এতোটাই ভদ্র যে নিজের দুরবস্থার জন্য কাউকে নয়, শুধু নিজেকেই দায়ী করেছেন। কেট বলেছেন, তিনি বিশ্বাস করেন, চাকরি এবং মাথা গোঁজার ঠাঁই পেলে ফের সুস্থ জীবনে ফিরতে পারবেন জনি। 
 
জনি ববিটের সঙ্গে কেট ম্যাকক্লিউর। ফিলাডেলফিয়ার রাস্তায়। 

জনপ্রিয়

Back To Top