আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ঘরে তীব্র অভাব। তবু আশা ছাড়েননি। স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি। সেই অভাবের সঙ্গে লড়াই করেই তৈরি করেছেন পথ। ২৮ বছরের বলবংক্তা তিওয়ারি আজ সেনা অফিসার। 
শনিবার ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমি থেকে স্নাতক পাশ করলেন তিনি। সেই বিরল মুহূর্তের সাক্ষী থাকলেন তাঁর মা, স্ত্রী এবং তিন মাসের মেয়ে। দিনটা বিহারের আরার তিওয়ারি পরিবারের কাছে সত্যিই স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছিল।
বলবংক্তার বাবা গরিব কৃষক। মা মুন্নি দেবী জানালেন, ১৬ বছর বয়স থেকে কাজ শুরু করেছেন ছেলে। পরিবারের মুখে ভাত তুলে দেবেন বলে। দিনে ১২ ঘণ্টা খেটে ৫০–১০০ টাকা পেতেন বলবংক্তা। তবু পড়াশোনা ছাড়েননি। কারণ স্বপ্ন ছিল, সেনা অফিসার হবেন।
তিওয়ারির এক আত্মীয় সেনাবাহিনীতে সেপাই ছিলেন। গ্রামে ফিরলে দারুণ খাতির পেতেন। ছোট থেকে সেই দেখেই সেনা হওয়ার ইচ্ছে ছিল তিওয়ারির। স্কুল পাশ করে ওডিশার রাউরকেল্লা পাড়ি দেন কাজের খোঁজে। সেখানে প্রথমে কারখানায় লোহার রড কাটতেন। পরে নিমকির কারখানায় কাজ নেন। ২০১২ সালে ভোপালের ইএমই সেন্টারের প্রবেশিকায় পাশ করেন। পাঁচ বছর সেখানে সেপাই হয়ে কাজ করেন। ২০১৭ সালে আর্মি ক্যাডেট কলেজে ভর্তির পরীক্ষায় পাশ করেন। এবার সেখান থেকেই স্নাতক পাশ করলেন তিওয়ারি। বললেন, ‘‌দারুণ খুশি আমি, যে সেনা অফিসার হয়ে দেশের সেবা করব। আমার বাবাও সারা গ্রামকে বলতে পারবেন, যে আমি সকলকে গর্বিত করেছি।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top