আজকাল ওয়েবডেস্ক: সন্ধ্যা ঘনিয়েছে। পার্কটা প্রায়ই ফাঁকাই হয়ে গিয়েছিল। তারের বেড়ায় গা ঘেঁষে দাঁড়িয়েছিলেন এক যুবক। হঠাৎ নজরে পড়ে জনমানব হীন পার্কে একটি দোলনাটা যেন নড়ে উঠল। প্রথমে পাত্তা দেননি তিনি। তার পর আরও দু’‌বার নড়ে ওঠে দোলনাটি। পাশের দোলনাটি কিন্তু তখন স্থির অবিচল। কী হল ব্যপারটা বুঝতে, মোবাইল বের করে ভিডিও করতে থাকেন তিনি। মুহূর্তের মধ্যে দোলনাটি জোরে জোরে দুলতে থাকে। যেন কেউ বসে দোল খাচ্ছে তাতে। পাশের দোলনাটি তখনও স্থির অবিচল। কী হল বিষয়টা বুঝে উঠতে পারেননি তিনি। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করতেই তোলপাড় শুরু হয় আগরপাড়ায়। কে দোল দিল দোলনায়?‌ এই নিয়ে শুরু হয়েছে জোর জল্পনা। মানুষের স্বভাবজাত ভয়ে ভর করেই জোড়াল হয়েছে ভুতুড়ে তত্ত্ব। কেউ বলছেন ভুতে দোলাচ্ছে। এই নিয়ে শনিপুজো থেকে শুরু করে হনুমান চাল্লিশা পাঠ শুরু করে দিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা। ভয়ে সেই পার্কে যাওয়ার নাম অনেকে উচ্চারণ পর্যন্ত করছেন না।

ছেলে মেয়েদের পাঠানো তো দূরের কথা। কেউ আবার বলছেন, এই পার্কের পাশেই নাকি একটি শিশুর মৃত্যু হয়েছিল। সে নাকি এই দোলায় দুলতে ভালোবাসতো। কিন্তু বিজ্ঞান মনে এত হতে পারে না। তাই কেউ কেউ উড়িয়ে দিচ্ছেন ভুতুড়ে তত্ত্ব। বলছেন পুরোটাই ভিডিওর কারসাজি। ভুত–টুত বলে কিছু হয় না। দোলনা দোলানো তো দূরের কথা। কেউ হয়তো কারসাজি করে ভয় দেখাতে কাজ করছে। 
ভিডিওর ২৫ সেকেন্ডের মাথায়, বাঁদিক দিক দিয়ে একটি ছায়ামূর্তি হেঁটে যেতেও দেখছেন কেউ কেউ। দাবি করা হচ্ছে, সেই ছায়ামূর্তিকে দিয়েই দোলনা দুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রহস্য তবুও থেকে যাচ্ছে। এমন হঠাৎ করে দোলনা দুলিয়ে এই কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলার কী মানে!‌ মানে ভয় দেখিয়ে ত্রাস তৈরির কী আলাদা কোনও কারণ আছে। সে সবের দিকে অবশ্য সোশ্যাল মিডিয়ার নজর নেই। বাড়ির পাশেই এমন ভুতুড়ে পার্কের সন্ধান পেয়ে এখন সেই বিষয়ের আলোচনাতেই মজে আছে সোশ্যাল মিডিয়া।

 

আগরপাড়ার এই পার্কেই দোলনা ঘিরে জল্পনা। ছবি: আজকাল  ‌

জনপ্রিয়

Back To Top