আজকাল ওয়েবডেস্ক: সকাল থেকে চলছে এলাকাবাসীদের সুবিধা–অসুবিধা নিয়ে কাউন্সিলরদের অনলাইন চ্যাট। দুপুরের পরও শেষ না হওয়ায় ফোন লাইভস্ট্রিমিং–এ রেখেই স্নান করছিলেন এক কাউন্সিলর। সেটাও লাইভস্ট্রিম হয়ে যাওয়ায় বিতর্ক শুরু হয়। চাপে পড়ে পদত্যাগ করেছেন স্পেনের তোরেলাভেগা মিউনিসিপ্যালিটির পার্টটাইম কাউন্সিলর বার্নার্ডো বাস্টিলো।
ঘটনাটি ঘটেছিল এসপ্তাহের শুরুতে। ওই মিউনিসিপ্যালিটি এলাকার ৫২,০০০ মানুষের লকডাউন পরবর্তী জীবনযাত্রার সমস্যা নিয়ে স্থানীয় সময় সকাল আটটা থেকে ছয়জন কাউন্সিলরদের সঙ্গে অনলাইন চ্যাটে বসেন মেয়র। দুপুর গড়িয়ে গেলেও অনলাইন বৈঠক শেষ হয়নি। এদিকে অন্য সময়ে সাঁতার প্রশিক্ষকের কাজ করা বার্নার্ডোকে সেখানে যাওয়ার জন্য তৈরি হতে হচ্ছিল। ফলে তিনি মাল্টিটাস্কিং–এর দিকে ঝোঁকেন। স্নান করতে করতেই অনলাইন আলোচনায় যুক্ত থাকার চেষ্টায় চ্যাট স্ক্রিনকে মিনিমাইস করে কম্পিউটার শৌচাগারে নিয়ে যান। যাতে স্নান করতে করতেই অন্যদের কথাবার্তা শুনতেও পারেন এবং প্রশ্নের জবাবও দিতে পারেন।
কিন্তু আজকের উন্নতমানের প্রযুক্তির ফলে তাঁর স্নানের ছবি ভেসে ওঠে কম্পিউটারের বাঁ দিকে। যদিও স্নানের জায়গাটি ঘসা কাচে মোড়া ছিল বলে বাস্টিলোর আবছা অবয়ব দেখা যাচ্ছিল। কিন্তু তিনি যে স্নান করছেন তা বোঝা যেতেই তাঁর সহকর্মীরা তাঁকে সতর্ক করতে তৎপর হয়ে ওঠেন। কিন্তু চ্যাট সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করা যাওয়ায় মেয়র পদক্ষেপ করে তাড়াতাড়ি আলোচনায় ইতি টানেন।
এই ঘটনায় টোরেলাভেগা মিউনিসিপ্যালিটি কর্তৃপক্ষ বিব্রত বোধ করলেও সেভাবে চিন্তিত নন বাস্টিলো নিজে। ঘটনার পর পদত্যাগ করতে চেয়ে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, মহামারীর জেরে মানুষের জীবনের দৈনন্দিন ঘটনাবলি ওলটপালট হয়ে গিয়েছে। তার ফলেই এধরনের ঘটনা ঘটছে। সাঁতার প্রশিক্ষক হিসেবে খুশি বাস্টিলো বলেছেন, ওই ঘটনার ফলে তাঁর রাজনৈতিক জীবন শেষ হয়ে গেলেও নিজের কাজ নিয়ে তিনি দুঃখিত নন।      

জনপ্রিয়

Back To Top