আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রাত ভর খুঁজল কনের বাড়ি। শহরের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত। রাস্তায় পথচারীদের ঠিকানা জিজ্ঞেস করলেন বরের বাড়ির লোকজন। কনের বর্ণনা দিয়ে খোঁজ চাইলেন। নাহ্‌‌!‌ কেউ বলতে পারলেন না।  শেষ পর্যন্ত রেগেমেগে ফিরে গেলেন বরযাত্রীরা। উত্তরপ্রদেশের মৌয়ের ঘটনা। 
নাটকের এখানেই শেষ নয়। সম্বন্ধ এনেছিলেন এক মহিলা ঘটক। এর পর তাঁর ওপর চোটপাট শুরু করে পাত্রের পরিবার। কোতওয়ালি থানায় নিয়ে যায়। শেষ পর্যন্ত যদিও পুলিশের হস্তক্ষেপে ওই মহিলার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেনি পরিবার।
পাত্র উত্তরপ্রদেশের আজমগড়ের বাসিন্দা। এর আগেও বিয়ে হয়েছিল তাঁর। বিহারের সমস্তিপুরের এক তরুণীর সঙ্গে। বিয়ের কয়েক মাস পর বাপের বাড়ি গিয়ে আর ফেরেননি তরুণী। তার পর আবার পাত্রী খুঁজতে শুরু করে বরের পরিবার। 
এবার এই ঘটক পাত্রীর খোঁজ দেয়। পাত্রী মৌয়ের বাসিন্দা। নাগরোলির এক দোকানে পাত্রীকে দেখেন পাত্র ও পরিবার। পছন্দ করেন। বিয়ের দিনক্ষণও পাকা হয়। পাত্রের পরিবারের থেকে ২০ হাজার টাকা নগদ দেয় পাত্রীর পরিবার। বিয়ের আয়োজনের জন্য। ১০ ডিসেম্বর বিয়ে করতে যান পাত্র। তখনই এই কাণ্ড। 

জনপ্রিয়

Back To Top