পার্থসারথি রায়,জলপাইগুড়ি: মুখ্যমন্ত্রীর নামে ফেসবুকে ভুয়ো প্রোফাইল খুলে বড় রকমের প্রতারণার অভিযোগ উঠল বাবা–ছেলের বিরুদ্ধে। নিজেদের মুখ্যমন্ত্রী ও প্রশান্ত কিশোরের (‌পিকে)‌ খাস লোক বলে পরিচয় দিত তারা। বৃহস্পতিবার দুপুরে শিলিগুড়ির সুভাষপল্লী থেকে দুজনকেই গ্রেপ্তার করেছে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার পুলিশ। তাদের নাম দীপেন্দু দত্ত ও দীপায়ন দত্ত। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন নেতা–‌মন্ত্রীদের প্রতারণা করেও কয়েক লক্ষ টাকা আদায় করেছে তারা। 
পুলিশের দাবি, মূলত ছেলেকে ক্যান্সারের রোগী সাজিয়ে অসংখ্য মানুষকে প্রতারণা করেছে দীপেন্দু দত্ত। প্রাক্তন বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ–‌সহ বিভিন্ন বিধায়কের কাছ থেকেই টাকা নিয়েছে অভিযুক্তরা। জানা গেছে, মন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মনের কাছে সাংবাদিক সেজে ছেলের ক্যান্সারের কথা বলে টাকা নিয়েছে অভিযুক্ত দীপেন্দু দত্ত। 
মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে একটি ভুয়ো প্রোফাইল বানিয়ে মানুষকে ধোকা দিত অভিযুক্তরা। ওই ভুয়ো প্রোফাইল থেকে বিভিন্ন মানুষকে মেসেজ পাঠানো হত। মেসেজ পাঠিয়েই সোজা তাদের কাছে বাবা ও ছেলে গিয়ে হাজির হত। এর পর নানা বাহানায় টাকা তোলা হত। ধৃতদের বিরুদ্ধে শিলিগুড়ির তৃণমূল নেতা মদন ভট্টাচার্য ও নান্টু পালের কাছ থেকেও টাকা নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। ফেসবুক প্রোফাইলে নিজেকে তৃণমূলের রাজ্য নেতা হিসেবে পরিচয় দিত প্রতারক দীপায়ন। এছাড়া বাবা ছেলে দুজনেই বেকার যুবক–‌যুবতীদের সরকারি চাকরি দেওয়ার নাম করেও অনেক টাকা হাতিয়েছে বলে অভিযোগ।
ধৃতদের বাড়ি জলপাইগুড়ি শহরের অরবিন্দনগর সংলগ্ন ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের পবিত্রপাড়া এলাকায়। সম্প্রতি তারা শিলিগুড়ির সুভাষপল্লী এলাকায় ঘাঁটি গেড়েছিল। জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার আইসি বিশ্বাশ্রয় সরকার বলেন, ‘‌ধৃতদের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে, তদন্ত চলছে।’‌ ধৃত দীপেন্দু দত্ত এর আগে জলপাইগুড়ি ও শিলিগুড়িতে বেশ কয়েকবার জেলও খেটেছে বলে জানা গেছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ধরা পড়ার পর এদিন সমস্ত প্রতারণার কথাও স্বীকার করে নেয় অভিযুক্তরা। 

ধৃত প্রতারক দীপেন্দু দত্ত। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top