অলক সরকার, শিলিগুড়ি: প্রায় প্রতি মাসে উত্তরবঙ্গ সফর নির্দিষ্ট থাকত মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির। কোভিড–১৯ এসে সেই রুটিনে ধাক্কা দিয়েছিল। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই মার্চের প্রথম সপ্তাহের পর আর জেলা সফরে বের হননি তিনি। বেশিরভাগ বৈঠক, সভা সেরেছেন ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে। কিন্তু ঘরে বসে কাজ করার মানুষ তিনি নন। তাই পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই উত্তরবঙ্গে এলেন মুখ্যমন্ত্রী। দীর্ঘ প্রায় সাড়ে ৬ মাস পর। মঙ্গল ও বুধবার, দু’‌দিন উত্তরবঙ্গের ৫ জেলাকে নিয়ে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন। এই সফরের মধ্যেই জলপাইগুড়ির জন্য স্বাস্থ্য বিষয়ক বড় কিছু উপহার দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ১ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার বিকেলের উড়ানে মুখ্যমন্ত্রীর কলকাতা ফিরে যাওয়ার কথা।
২০১১ সালে রাজ্যে তৃণমূল সরকার গঠনের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যে সব রেকর্ড তৈরি করেছেন, তার মধ্যে অন্যতম উত্তরবঙ্গ সফর। আজ পর্যন্ত কোনও মুখ্যমন্ত্রী ৯ বছরে শতাধিক বার উত্তরবঙ্গ সফর করেননি। একইভাবে তিনি পাহাড় সফরেও রেকর্ড করেছেন। কিন্তু করোনা সংক্রমণ শুরু হতেই মুখ্যমন্ত্রীর সফরে বাধা পড়ে। তিনি শেষবার উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর এবং মালদা সফরে এসেছিলেন মার্চের প্রথম সপ্তাহে। সাড়ে ৬ মাস আগের কথা। শিলিগুড়ি শেষবার এসেছেন তারও আগে। ২১ জানুয়ারি। ২৩ জানুয়ারি দার্জিলিঙের ম্যালে নেতাজি জন্মজয়ন্তী উদ্‌যাপন করেছেন। এই দীর্ঘ সময়ে মুখ্যমন্ত্রী জেলাগুলির সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন ভিডিও কনফারেন্সে। ভার্চুয়াল সভা করেছেন। কোভিড পরিস্থিতির মধ্যে এদিনই প্রথম জেলা সফরে এলেন। শুরু করলেন উত্তরবঙ্গ দিয়ে। 
জানা গেছে, ২৯ ও ৩০ সেপ্টেম্বর যথাক্রমে জলপাইগুড়ি–‌আলিপুরদুয়ার জেলা এবং কোচবিহার–‌দার্জিলিং–‌কালিম্পং জেলার সঙ্গে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন। এই দু’‌দিনের মধ্যেই জলপাইগুড়ি জেলার মানুষের জন্য স্বাস্থ্য বিষয়ক বড় কিছু উপহার দিতে পারেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য দপ্তরের করোনা বিষয়ক উত্তর‌বঙ্গের স্পেশ্যাল অফিসার ডাঃ সুশান্ত রায়। 
মুখ্যমন্ত্রী আসার আগে থেকেই ব্যাপক উৎসাহ–উদ্দীপনা ছিল শহর জুড়ে। বাগডোগরা থেকে উত্তরকন্যা মুখ্যমন্ত্রীর যাত্রাপথকে নানান কাট‌আউটে সাজিয়ে ফেলা হয়। বাগডোগরায় নেমে যখন মুখ্যমন্ত্রী নৌকাঘাট হয়ে উত্তরবঙ্গের মিনি সচিবালয় উত্তরকন্যার অতিথি নিবাস কন্যাশ্রীতে যাচ্ছিলেন, তখন নৌকাঘাট মোড়ে প্রচুর মহিলা শঙ্খধ্বনি ও উলুধ্বনি দিয়ে এবং যুবকেরা ঢাক বাজিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। সকলের কাছেই এই সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এদিন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও ইন্দ্রনীল সেনও এসেছেন। মন্ত্রী মলয় ঘটক কাজের সূত্রে আগেই উত্তরবঙ্গে এসেছেন। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দু’‌দিনের প্রশাসনিক বৈঠকে উত্তরবঙ্গের মন্ত্রীরা ছাড়াও রাজ্যের মুখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব ও জিটিএ প্রতিনিধিদের থাকার কথা।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top