পবিত্র মোহান্ত, বালুরঘাট: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত সিপিএমের বহিষ্কৃত সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জির জামিন মঞ্জুর করলেন বিচারক। সোমবার এই মামলায় আত্মসমর্পণের পরে ৫ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান তিনি। অপরদিকে নম্রতা দত্তের পক্ষ থেকে দায়ের করা অন্য একটি মামলারও শুনানি ছিল এদিন। তবে সেই মামলার তদন্ত অসম্পূর্ণ থাকায় ওই মামলাতেও জামিন পান ঋতব্রত ও তাঁর স্ত্রী দুর্বা ব্যানার্জি সেন। এদিন সকাল ১১টা নাগাদ বালুরঘাট আদালত চত্বরে হাজির হন রাজ্যসভার সাংসদ ঋতব্রত ব্যানার্জি। আগে থেকেই প্রচুর মানুষ ভিড় জমিয়েছিলেন আদালত চত্বরে। প্রসঙ্গত, এ বছরের ১০ অক্টোবর বালুরঘাট শহরের খাদিমপুর এলাকার বাসিন্দা নম্রতা দত্ত ঋতব্রতর বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছিলেন বালুরঘাট থানায়। ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে গোপন জবানবন্দীও দেন নম্রতা। রাজ্য সরকারের তরফে এই ঘটনার তদন্তভার সিআইডি–র হাতে তুলে দেওয়া হয়েছিল। ঋতব্রত আগাম জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন বালুরঘাট থানায়। ৩ নভেম্বর মামলার শুনানিতে হাজির ছিলেন ঋতব্রতর আইনজীবী অনির্বাণ গুহঠাকুরতা–সহ কলকাতার চার আইনজীবী। সে–সময় ৫ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে ঋতব্রতর ৩ সপ্তাহের জামিন মঞ্জুর করেন বিচারক। ৩ সপ্তাহের মধ্যে ঋতব্রতকে সরাসরি হাজির হয়ে আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছিলেন। এদিন ঋতব্রতকে আদালতে হাজির করা হয়েছিল। অন্যদিকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ জানিয়ে আরেকটি মামলা করেছিলেন নম্রতা, সেই মামলারও শুনানি ছিল। নথি অসম্পূর্ণ থাকায় ঋতব্রত ও দুর্বা ব্যানার্জির জামিন মঞ্জুর করেন বিচারক।‌

বালুরঘাট আদালতে ঋতব্রত ব্যানার্জি। সোমবার। ছবি: প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top