সঞ্জয় বিশ্বাস, দার্জিলিং: মেট্রো সিটির বাইরে দেশে প্রথমবার কোনও আন্তর্জাতিক মানের চলচ্চিত্র উৎসব করছে ফিল্ম ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া। তাও সেটা হচ্ছে উত্তরবঙ্গের শিলিগুড়িতে। সেখানেই বিশেষ আমন্ত্রণে অতিথি হয়ে এসেছেন ৭০ দশকের জনপ্রিয় অভিনেতা তথা পরিচালক রণধীর কাপুর। কিন্তু শিলিগুড়ি এসে শৈলশহরের টান উপেক্ষা করতে পারলেন না। ফাঁক বুঝে সটান উঠে পড়লেন দার্জিলিঙে। আর সেখানে গিয়েই পুরনো স্মৃতির কথা মেলে ধরলেন। শোনালেন ‘‌ববি’‌র শুটিংয়ে বাবার সঙ্গে দার্জিলিং আসার কথা। 
১৯৭৩ সালে রাজ কাপুর পরিচালিত একটি হিন্দি সিনেমা গোটা দেশে সাড়া ফেলে দিয়েছিল। ঋষি কাপুর ও ডিম্পল কাপাডিয়া অভিনীত সেই সিনেমা ছিল ‘‌ববি’। এই ছবিতে ঋষি কাপুর বোর্ডিং স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে এসে এক জন্মদিনের পার্টিতে ডিম্পলকে দেখে প্রেমে পড়ে যায়। বোর্ডিং স্কুল দেখানোর প্রয়োজনে রাজ কাপুর দার্জিলিঙের সেন্ট পল্‌স স্কুলকে বেছে নিয়েছিলেন। সেই স্কুলের দৃশ্য ক্যামেরাবন্দী করতে রাজ কাপুর এসেছিলেন দার্জিলিং। তখন বাবার সঙ্গে এই শৈলশহরে প্রথমবার পা রেখেছিলেন ছেলে রণধীরও। সেটাই রণধীর কাপুরের দার্জিলিং নিয়ে প্রথম স্মৃতি। সেই থেকে এই শৈলরানির প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন তিনিও। ফলে কাজে–‌অকাজে নানা সময় তিনি উত্তরবঙ্গের এই পাহাড়ে এসেছেন। এ যাত্রায় গ্লোবাল সিনেমা ফেস্টিভ্যালে এসেও তাই দার্জিলিংকে উপেক্ষা করতে পারেননি। এদিন শহরের অন্যতম বেকারি গ্লেনারিজে বসে সকালের খাবার খাচ্ছিলেন। অনেকেই তাঁকে চিনতে পারেন। কেউ সই নিলেন, কেউ নিলেন সেল্‌ফি। খবর পেয়ে হাজির সাংবাদিকেরাও। দার্জিলিংকে ঘিরে উঠে এল অনেক স্মৃতি। ফিরে গেলেন সেই হারানো দিনগুলোয়। অভিনয় থেকে আপাতত অনেক দূরে। এই প্রজন্ম হয়ত তাঁকে চেনে করিশমা–‌করিনা কাপুরের বাবা হিসেবে। এসেছেন শিলিগুড়িতে। গ্লোবাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের অতিথি হয়ে। বললেন, ‘‌দার্জিলিং হিন্দি ছবির ভাল গন্তব্য হয়ে উঠতেই পারে। তাই দার্জিলিংকে আরও ভাল করে তুলে ধরা দরকার। পরিচালকদেরও উচিত এরকম পর্যটন কেন্দ্রের আরও বেশি করে খোঁজ রাখা।’‌ 

দার্জিলিঙের গ্লেনারিজে রণধীর কাপুর। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top