উত্তরবঙ্গে ফিরে নিশীথকে তোপ দাগলেন পরেশ

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌নিশীথ প্রামাণিক, জগন্নাথ সরকাররা তাঁদের জয়ী কেন্দ্রগুলিকে পুনরায় নির্বাচনের মুখে ফেলে দিলেন। এরা কেনই বা বিধানসভা নির্বাচনে দাঁড়ালেন, আবার কেনই বা পদত্যাগ করলেন তা আমার বোধগম্য হল না।’‌ জলপাইগুড়ি রোড স্টেশনে নেমে এই মন্তব্য করলেন মেখলিগঞ্জ এর তৃণমূল বিধায়ক তথা স্কুল ও শিক্ষা দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারী। 
বিধানসভায় শপথ নিয়ে আজ মেখলিগঞ্জে ফিরলেন পরেশ অধিকারী। এদিন তিনি জলপাইগুড়ি রোড স্টেশনে নামেন। তাঁকে বরণ করে নিতে সকাল থেকে সেখানে ভিড় জমিয়েছিলেন তৃণমূল নেতা ও কর্মীরা।

পরেশ অধিকারী ট্রেন থেকে নামবার পর তাঁকে ফুল, মালা দিয়ে সংবর্ধনা দিয়ে উল্লাসে ফেটে পড়েন তার অনুগামী ও কর্মীরা। 
গতকালই বিধানসভায় গিয়ে বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেন বিজেপির দুই সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক ও জগন্নাথ সরকার। কোচবিহারে নিশীথ ও নদিয়ার শান্তিপুরে জগন্নাথ সরকার জিতেছেন। নিয়ম অনুযায়ী এক ব্যক্তি একই সঙ্গে সাংসদ এবং বিধায়ক পদে থাকলে ৬ মাসের মধ্যে কোনও একটি পদ তাঁকে ছাড়তে হয়। সেই নিয়ম মেনেই বিধায়ক পদ ছাড়লেন তাঁরা। এবার ওই দুই কেন্দ্রে উপনির্বাচন অনিবার্য। যা নিয়ে রাজ্যের শাসকদলের সমালোচনার মুখে পড়েছেন দুই সাংসদ। কারণ করোনা আবহে আবার নির্বাচন করতে হলে ফের বিপুল অর্থ অপচয় হবে। সে কথাই মনে করিয়ে দিলেন পরেশ অধিকারী।