পঙ্কজ সরকার, মালদা, ১৯ জুন- হুবহু যেন সিনেমার চিত্রনাট্য। রীতিমতো পরিকল্পনা করে অপহরণের ছক করা হয়েছিল স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞকে। আর অপহরণের অভিযোগ ওই চিকিৎসকের স্ত্রী, ২ শ্যালক ও শ্যালিকার বিরুদ্ধে। চিকিৎসককে পাগল সাজিয়ে অপহরণ করে একটি ট্যাক্সিতে করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ। অপরিচিত জায়গা দেখে মালদার গাজোলের কাছে চিৎকার শুরু করেন ওই চিকিৎসক। ছুটে আসেন স্থানীয়রা। তাঁদের সামনে সব খুলে বললে ৩ অপহরণকারীকে ধরে ফেলেন স্থানীয়রাই। সুযোগ বুঝে পালায় গাড়ির চালক। গাড়িতে ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। পরে অপহরণকারীদের গাজোল পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। জানা গেছে, দাবি মতো ৭৫ লাখ টাকা না দেওয়ায় ওই চিকিৎসককে অপহরণের ছক কষা হয়।
   পুলিশ সূত্রের খবর, অপহরণ হওয়া চিকিৎসকের নাম সুনীল চৌধুরি (‌৫৯)‌। দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরের সুভাষপল্লীতে বাড়ি তাঁর। ইসলামপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ হিসেবে কর্মরত সুনীলবাবু। রবিবার বিকেলের দিকে তাঁকে সুভাষপল্লীর বাড়ি থেকে জোর করে তুলে নিয়ে যায় চার অপরিচিত যুবক। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, বিকেলের দিকে ৪ যুবক বাড়িতে যায়। বাড়িতে তখন তাঁর স্ত্রী রানি চৌধুরি, দুই শ্যালক দেবকুমার গুপ্তা, অসীম গুপ্তা ও শ্যালিকা কল্পনা গুপ্তা ছিলেন। ওই যুবকেরা এসে জানায়, তারা বুনিয়াদপুর থানা থেকে এসেছে তাঁকে নিয়ে যেতে। জোর করে তাকে একটি ট্যাক্সিতে তোলা হয়। তাদের সাহায্য করে অভিযুক্ত স্ত্রী ও শ্যালক-‌শ্যালিকা। এরপর বুনিয়াদপুরের দিকে গাড়ি দ্রুতবেগে ছুটিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে মালদার দিকে। গাজোলের দেওতলার কাছে তিনি চিৎকার শুরু করেন। শুনে ছুটে যান স্থানীয়রা। তাদের হস্তক্ষেপেই তিনজন ধরা পড়ে যায়। 
পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের নাম রাজু আহমেদ (‌২৫), সেলিম শেখ (‌২০)‌ ও শুভ বিশ্বাস (‌২৩)‌। রাজুর বাড়ি শহরের মীরচকে। সেলিমের বাড়ি কালিয়াচকের সুজাপুরে ও শুভর বাড়ি রায়গঞ্জে। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, চিকিৎসকের স্ত্রী রানি চৌধুরি, ২ শ্যালক শ্যালিকা তার কাছ থেকে ৭৫ লাখ টাকা দাবি করে। দিতে না চাওয়ায় অপরহণের ছক কষা হয়। সুনীলবাবু বলেন, ‘‌ওরা আমার স্ত্রীকে নিজেদের দলে টেনে আমার বিরুদ্ধে অপহরণের ছক করে। ওদের দাবি মতো ৭৫ লাখ টাকা না দিতে চাওয়ায় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। একটি মহিলার সঙ্গে নোংরা সম্পর্ক প্রমাণ করতে ষড়যন্ত্র করে ছবি তুলে রাখে। ওই ছবি সব জায়গায় ছড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে ব্ল্যাকমেল করত। তাতেও কাজ না হওয়ায় আমাকে পাগল বানিয়ে অপহরণের চেষ্টা করে।’‌‌

 

ধৃতদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে থানায়। ছবি:‌ প্রতিবেদক

জনপ্রিয়

Back To Top