পঙ্কজ সরকার‌, ‌মালদা, ৪ জুন- করোনা যুদ্ধ জয় করে এবার করোনা নিয়ে সচেতনায় নামতে চাইছেন ‘‌বড়দা’‌। পোশাকি নাম জিয়াউল হক। কোভিড হাসপাতাল থেকে বাড়িতে ফিরেছেন সবে। কিছুদিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে, এমনই নির্দেশ স্বাস্থ্য দপ্তরের। এখন পরিবারের সদস্যদের করোনা নিয়ে সচেতন করার কাজে মগ্ন তিনি। কয়েকদিন পর বাড়ির বাইরে বেরোনোর ছাড়পত্র পাবেন। তখন গ্রামের মানুষকে সচেতন করবেন সকলের তিনি‌। 
মুম্বই থেকে ফিরে হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। গত ২৭ মে তাঁর দেহে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়লে তাঁকে ফোন করে জানান স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মীরা। শোনার পর স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মীদের অপেক্ষা না করে ৭ কিলোমিটার রাস্তা সাইকেল চালিয়ে মোথাবাড়ি আইসোলেশনে এসে হাজির হন। করোনা মুক্ত হয়ে বুধবার বাড়ি ফিরেছেন। বছর চুয়ান্নর জিয়াউলের বাড়ি কালিয়াচক–২ ব্লকের পঞ্চানন্দপুরের লাহার্দিটোলা গ্রামে। মুম্বইয়ের পারেল শহরে অস্থায়ীভাবে হোটেল চালান প্রায় ২০ বছর ধরে। পাশেই ক্যান্সার হাসপাতাল। সেখানে চিকিৎসা করতে যাওয়া অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতেন তিনি। তাঁদের যাবতীয় সমস্যার সমাধান করার জন্যই তিনি সেখানে ধীরে ধীরে সকলের ‘‌বড়দা’‌ হয়ে ওঠেন। জিয়াউল জানান, ‘‌মানুষের অযথা আতঙ্কের কিছু নেই। কিছু নিয়ম মেনে চললেই হবে। আমি তাই মানুষকে বোঝাতে চাই।’‌ সংশ্লিষ্ট পঞ্চায়েত সদস্য দাউদ হোসেন বলেন, ‘‌এলাকায় তিনি নিজের উদ্যোগে করোনা নিয়ে সচেতন করতে চান। খুব ভাল উদ্যোগ।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top