পার্থসারথি রায়,জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতাল চত্বরে শুরু হয়েছিল হিন্দি ছবির শুটিং। আর শুটিং হলে হুড়োহুড়ি তো থাকবেই। এই অবস্থায় রোগী ও রোগীর আত্মীয়রা এসে ঠিকমতো চিকিৎসা পরিষেবা পেলেন না সরকারি হাসপাতালে।ক্ষোভে ফেটে পড়েন রোগীর আত্মীয়রা। হুলস্থুল কাণ্ড শুরু হয়ে যায়। পুলিশ নামানো হয়। এরই মধ্যে অনেক রোগী ও তাঁদের আত্মীয়রা দিনভর উপভোগ করলেন হিন্দি সিনেমার শুটিং। দেখলেন প্রিয় অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে। ‘‌বাঁসুরী’‌ নামের এই ছবিতে একটি বিশেষ চরিত্রে অভিনয় করছেন পরিচালক ও অভিনেতা অনুরাগ কাশ্যপ।  উত্তরবঙ্গকে কেন্দ্র করেই এই ছবি। গত ২৫ মে ডুয়ার্সের চালসায় হয়েছে শুটিং। অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ও অভিনেতা অনুরাগ কাশ্যপ জলপাইগুড়ি শহরে। মঙ্গলবার দিনভর জলপাইগুড়ির রায়কতপাড়া এলাকার একটি বাড়িতে শুটিং হয়েছিল। বুধবার সকাল থেকে শুটিংয়ের কেন্দ্রস্থল ছিল জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতাল চত্বর। জেলা হাসপাতালের লেপ্রসি বিভাগের সামনে ছবির বিশাল ইউনিট চলে আসে। সেখানে ছিলেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। মূলত তাঁকে দেখার জন্যই উপচে পড়া ভিড় ছিল হাসপাতাল চত্বরে। স্বাস্থ্যকর্মীদের অনেকেই ব্যস্ত ছিল শুটিং দেখায়। আটকে দেওয়া হয় সাধারণ মানুষের যাতায়াত। এমনকী হাসপাতালের লেপ্রসি বিভাগের গোটা অফিস ঘর চলে যায় ছবি নির্মাতাদের অধীনে। সুশোভন সরকার নামে স্বাস্থ্য দপ্তরের এক কর্মী এদিন সকাল ১০টায় হাসপাতালে ঢুকতে পারেননি বলে অভিযোগ করেন। হলদিবাড়ি থেকে আসা গোবিন্দ সরকার নামে এক রোগীর অভিযোগ, শুটিং চলার জন্য অনেক রোগীকেই ফিরে যেতে হয়েছে। প্রসূতি বিভাগের মায়েরাও পি পি বিভাগে ডাক্তার দেখাতে এসে সমস্যায় পড়েছিলেন। হয়রান হতে হয় জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মীদেরও। রোগীদের দাবি, ‘‌শুটিং কাজের সময় না হলেই ভাল হত। ’‌
যদিও এরই মধ্যে শুটিং সেরে নিয়েছিলেন ছবি নির্মাতা ও কর্মীরা। জানা গেছে, ‘‌বাঁসুরী’‌ নামে পূর্ণ দৈর্ঘের এই হিন্দি ছবিটির পরিচালক হ্যারি বিশ্বনাথন। অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ও অভিনেতা অনুরাগ কাশ্যপ ছাড়াও ছবির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন মাসুদ আখতার। ছবির প্রোডাকশন ইনচার্জ শম্ভু মুন্সি বলেন, জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের অনুমতি নেওয়া হয়েছিল। তবে নির্দিষ্ট সময়ে শুটিং শেষ হয়নি। জলপাইগুড়ি জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডা.‌‌ জগন্নাথ সরকার বলেন, ‘‌সকাল ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত শুটিংয়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। তবে তেমন কোনও সমস্যা তৈরি হয়নি।’‌ জানা গেছে, আগামী কয়েক মাস উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় এই ছবির শুটিং হবে।

জনপ্রিয়

Back To Top