গিরিশ মজুমদার, শিলিগুড়ি, ২৬ আগস্ট

বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেল একটি তেল প্যাকেজিং কারখানা। বুধবার ভোররাতে শিলিগুড়ি লাগোয়া ফুলবাড়ির পশ্চিম ধনতলায় ওই সর্ষের তেল প্যাকেজিংয়ের কারখানায় ভয়াবহ আগুন লাগে। ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। কারণ কারখানাটির আশেপাশে প্রচুর বাড়ি রয়েছে। তাই যে–‌কোনও মুহূর্তে বিপদ হতে পারে ভেবে কান্নাকাটি জুড়ে দেন স্থানীয়রা। তবে দমকলের তৎপরতায় সমস্ত আতঙ্ক দূর করা গেছে। আশাপাশে কোনওরকম ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। শুধু তাই নয়, ওই কারখানার একজন শ্রমিকও সামান্যতম আহত হননি। 
নিউ জলপাইগুড়ি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে থেকে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে। সেইসঙ্গে স্থানীয় তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য তথা ফুলবাড়ি–২ অঞ্চলের উপপ্রধান মোঃ বদিউল আলম দাঁড়িয়ে থেকে তদারকি করেছেন। শুধুমাত্র কারখানাটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে প্রায় ২৫ লক্ষ টাকার তেল ও অন্য মেশিন নষ্ট হয়েছে। তবে এই কারখানায় অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ঠিকঠাক ছিল না বলেও অভিযোগ উঠেছে। দমকল তদন্ত শুরু করেছে। বহুবছর ধরে জীবন জ্যোতি প্যাকেজিং তেলের প্যাকেজিং কারখানা করা হয়েছে স্থানীয় চুনাভাটিতে। এর মালিক রাজীব প্রসাদ সিকিমের বাসিন্দা। তিনি এদিন ঘটনাস্থলে আসতে পারেননি। তবে সেখানে কারখানার হিসাব রক্ষক মানব দে বলেন, দমকল তৎপরতার সঙ্গে আগুন নিভিয়েছে। কীভাবে আগুন লাগল বলতে পারব না। ক্ষয়ক্ষতি জানতে সমীক্ষা করা হবে। আগুন লাগার কারণ খতিয়ে দেখছে দমকল। তবে স্থানীয়দের মতে কারখানায় শর্ট সার্কিট থেকে আগুন ছড়ায়। 
ঘটনাটি ঘটেছে রাত সাড়ে তিনটে নাগাদ। সেসময় কারখানায় শ্রমিকরা ঘুমিয়ে ছিলেন। একটা ঘর থেকে ধোঁয়া এবং শব্দ শুনে শ্রমিকরা বেরিয়ে পড়েন। তাঁরাই আগুন নেভাতে হাত লাগান। কিন্তু আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ায় দমকলকে খবর দেওয়া হয়। শিলিগুড়ি থেকে এক এক করে ৪টি ইঞ্জিন এসে আগুন আয়ত্তে আনে। কয়েকঘণ্টা ধরে আগুন জ্বললেও আশপাশে ছড়াতে পারেনি। স্থানীয়রা দমকলের তৎপরতায় খুশি।

ফুলবাড়ির পশ্চিম ধনতলায় সর্ষের তেলের কারখানায় আগুন নেভানোর পর। ছবি:‌ শৌভিক দাস

জনপ্রিয়

Back To Top