গিরিশ মজুমদার‌, শিলিগুড়ি, ২৮ অক্টোবর- আলোর উৎসবে দুই পরিবারে নেমে এল শোকের ছায়া। দীপাবলিতে ঘুরতে বের হয়ে বাইক দুর্ঘটনায় অকালে প্রাণ গেল দুই বন্ধুর। মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আরেক বন্ধু। রবিবার দীপাবলির রাতে এই মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনা ঘটেছে শিলিগুড়ির উত্তরকন্যার সামনে এশিয়ান হাইওয়ে–২–‌এর ওপরে। মৃত ও আহতদের বাড়ি ফুলবাড়ির পশ্চিম ধনতলায়। দুর্ঘটনাস্থলে মৃত কিশোরের নাম গোলাপ হোসেন (‌১৬)‌। হাসপাতালের পথে মৃত কিশোরের নাম দীপু দাস (‌১৬)। জখম যুবকের নাম সুভাষ দাস। বাইক চালাচ্ছিল গোলাপ। নতুন বাইক পেয়ে দুই বন্ধুকে নিয়ে শিলিগুড়িতে ঘুরতে বের হয় ওরা। ফেরার পথে উত্তরকন্যার সামনে একটি বাঁক নিতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ওদের বাইক রাস্তার মাঝে ডিভাইডারে ধাক্কা খেয়ে লোহার রেলিংয়ে সজোরে আঘাত পায়। বাইক থেকে ছিটকে পড়ে তিনজনই। মাথা ফেটে রাস্তায় লুটিয়ে পড়ে গোলাপ ও দীপু। স্থানীয়রা ছুটে এসে উদ্ধার কাজে হাত লাগান। কিন্তু গলগল করে রক্ত বের হয়ে সঙ্গে সঙ্গে মৃত্যু হয় গোলাপের। তখনও দেহে প্রাণ ছিল বলে বাকি দু’‌জনকে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
জানা গেছে, মৃত গোলাপের দাদা মহম্মদ আজাদ আলি কাজ থেকে বাড়ি ফিরে নতুন বাইকটি বাড়ির বাইরেই রাখেন। বালিশের তলা থেকে বাইকের চাবি নিয়ে গোলাপ চুপি চুপি বাইক নিয়ে বেরিয়ে যায়। বাড়ির লোক জানেন গোলাপ হয়তো বাইক নিয়ে ঘুরতে গেছে। কিন্তু রাতে খবর আসে উত্তরকন্যার সামনে পথ দুর্ঘটনায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ মৃতের পরিচয় জানতে গিয়েই পশ্চিম ধনতলার বাসিন্দা বলে খোঁজ পায়। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যালে গিয়ে স্পষ্ট হয় দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে গোলাপ ও তার বন্ধু দীপু দাসের। জখম হয়েছে সুভাষ দাস। পুলিশের কাছে দুই তরতাজা কিশোরের মৃত্যুর খবর পেয়ে শোকের ছায়া নেমে আসে এলাকায়। এলাকার বাসিন্দারা মেডিক্যালে ছুটে আসেন। বাড়িতে আলোর উৎসব। তার মধ্যে এই দুই কিশোরের মৃত্যুর ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বাকরুদ্ধ পরিবার। এদিকে এই দুই কিশোরের মৃত্যুতে অপরিণতদের হাতে বাইক দেওয়া নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। পুলিশ প্রশাসনের নজরদারির পাশাপাশি অভিভাবকদেরও আরও সজাগ হওয়ার দাবি উঠেছে।

এই দুই বন্ধুর মৃত্যু। গোলাপ হোসেন ও দীপু দাস। ছবি:‌ সংগৃহীত  
 

জনপ্রিয়

Back To Top