আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দিল্লির রাজঘাট এলাকায় গণধর্ষণের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল। স্বয়ং রাজধানীর এই অভিজাত এলাকায় এই ঘটনা ঘটায় নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। রাজঘাট এলাকায় যেখানে এই গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ঠিক তার পিছন দিকেই রয়েছে ঘাটা মসজিদ। সেখান থেকে অর্ধনগ্ন এক মহিলার দেহ উদ্ধার করেছে পুলিস। ঘটনাস্থল থেকে পাওয়া শার্টের বোতাম, কাপড়ের টুকরো এবং মদের বোতল উদ্ধার করে পুলিস। তা থেকেই প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের ধারণা গণধর্ষণ করা হয়েছে উদ্ধার হওয়া মহিলাকে। এই ঘটনায় ওখান থেকে কয়েকজন রিকশাচালক ও নেশাগ্রস্ত লোককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করতে শুরু করেছে পুলিস। 
পুলিস সূত্রে খবর, গণধর্ষণের পর ওই মহিলাকে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে বলে প্রমাণ মিলেছে। মুখটা যাতে চিহ্নতে না পারা যায় তার জন্য পাথর দিয়ে থেঁতলে দেওয়া হয়েছে। তার শরীরে অনেকগুলি ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। মুখে এত বেশি আঘাত করা হয়েছে যে তার পরিচয় জানা যাচ্ছে না। পাথরটিও উদ্ধার করা হয়েছে নির্যাতিতা মহিলার পাশ থেকে। নির্যাতিতা মহিলার উচ্চতা ৫ ফুট। তার পরনের সালোয়ারের বুকের কাছে ছেঁড়া ছিল। তবে নির্যাতিতা মহিলার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য এলএনজেপি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 
স্থানীয় ও পুলিস সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজঘাটের ফুটপাতের বাসিন্দা ওই মহিলা রবিবার কয়েকজন যুবকের সঙ্গে নিকটবর্তী পার্কে আসে। সম্ভবত ওই যুবকদের সঙ্গে মদের বোতল ছিল। পার্কে বসে মদ্যপান করার পর মহিলাকে ধর্ষণ ও পরে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়। নির্যাতিতা মহিলার পাশ থেকে পাওয়া জিনিসপত্র ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। 

জনপ্রিয়

Back To Top