আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ জ্বলছে দেশের রাজধানী দিল্লির। অশান্তি মূলত দিল্লির উত্তর–পূর্ব অংশে। গত তিনদিনের হিংসায় এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৪ জনের। যা কি না সময় যত এগোচ্ছে ততই বেড়ে চলেছে। আর সেই ঘটনার গুরুত্ব অনুধাবন করেন দিল্লির হিংসার ঘটনায় মধ্যরাতে হল আদালতের শুনানি। যা চলল বুধবার প্রায় বিকেল পর্যন্ত। জরুরিভিত্তিতে হওয়া শুনানিতে পুলিশকে হিংসায় আহতদের যথাযথ চিকিত্‍‌সা ব্যবস্থা দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করার নির্দেশ দিল দিল্লি হাইকোর্ট। এখানেই শেষ নয়, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীনে থাকা দিল্লি পুলিশকে চূড়ান্ত ভর্ৎসনা করে আদালত অনুরাগ ঠাকুর, কপিল মিশ্র–সহ তিন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর করারও নির্দেশ দিয়েছে। পাশাপাশি সমস্ত উস্কানিমূলক ভিডিও খতিয়ে দেখে আগামীকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবারের মধ্যে রিপোর্ট জমা দিতে বলেছে। তারপর ফের শুনানি হবে এই মামলার। জানিয়েছে দিল্লি হাইকোর্ট। এর পাশাপাশি বিচারপতিরা বলেন, ‘‌আমরা কেউ চাই না আরেকটা চুরাশির শিখ দাঙ্গা হোক।’‌  
দিল্লির ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবিতে হাইকোর্টে আবেদন জমা পড়েছিল। সেই মামলার শুনানিতেই বিচারপতি এস মুরলীধর রাও এবং তালওয়ান্ত সিংয়ের ডিভিশন বেঞ্চ এই মামলাটির শুনানি করেন। শুনানির সময় দিল্লি পুলিশের হয়ে সওয়াল করেন সলিসিটর জেনালের তুষার মেহেতা। তাঁকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া বিজেপি নেতাদের নানা উসকানিমূলক ভিডিয়োগুলির বিষয়ে জানতে চান বিচারপতিরা। তখন তুষার মেহেতা বলেন, ‘‌আমি এসব ভিডিও দেখিনি। টিভি দেখি না।’‌ এরপরই বিচারপতিরা ক্ষুব্ধ হয়ে পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘‌দিল্লির পুলিশ কমিশনারের ঘরে কি টিভি নেই? তিনি কি বিজেপি নেতাদের কথাগুলি শোনেননি? দিল্লির পুলিশ কমিশনারকে পরামর্শ দিন, এই ধরনের উসকানিমূলক ভাষণ দেওয়ার জন্য তিন বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে এফআইআর করা হোক।’‌ দিল্লির হিংসায় ক্রমেই বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। গত তিনদিন আহত হয়েছেন দুশোরও বেশি মানুষ। আহতরা হাসপাতালগুলিতে যাতে যথাযথ পরিষেবা পান, সেই আবেদন করে জরুরিভিত্তিতে শুনানির আর্জি জানানো হয়েছিল আদালতে। তারই ভিত্তিতে মঙ্গলবার রাত ১২.৩০টা নাগাদ বিচারপতি এস মুরলীধরের বাড়িতে শুনানি করে দুই বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। সেখানেই আদালত নির্দেশ দিয়েছে, আহতদের অবিলম্বে যথাযথ জরুরিভিত্তিতে চিকিত্‍‌সা ব্যবস্থা দেওয়া সুনিশ্চিত করতে হবে দিল্লি পুলিশকে। জখমদের চিকিত্‍‌সায় কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হল, তা জানিয়ে আদালতে একটি কমপ্লায়েন্স রিপোর্টও পেশ করতে বলা হয়েছে পুলিশকে। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top