আজকালের প্রতিবেদন,দিল্লি: রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির কাছে ফেরার শিল্পপতি বিজয় মালিয়ার ঋণের পরিমাণ কত, জানে না কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক!‌ তথ্য জানার অধিকার আইনে এক আবেদনের উত্তরে মন্ত্রক জানিয়েছে মুখ্য তথ্য কমিশনারের কাছে। রাজেশ কুমার খারে নামে ওই আবেদনকারী প্রথমে সরাসরি অর্থ মন্ত্রকের কাছের মালিয়ার থেকে অনাদায়ী ঋণের ব্যাপারে জানতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সদুত্তর না পেয়ে তিনি মুখ্য তথ্য কমিশনারের দপ্তরে আবেদন করেন। এই কমিশনারই তথ্যের অধিকার আইনের আওতায় সমস্ত সওয়াল জবাবের সর্বোচ্চ নিয়ামক। তঁার প্রশ্নের জবাবে অর্থ মন্ত্রক শেষ পর্যন্ত জানিয়েছে, কোন ব্যাঙ্কের কাছে মালিয়ার কত কোটি টাকা ঋণ, সেই ঋণের ‘‌গ্যারান্টি’‌ হিসেবে কী বন্ধক রাখা ছিল, এসব তথ্য নেই মন্ত্রকের কাছে। এই অজ্ঞানতা কবুল করার পর মন্ত্রক রীতিমতো তিরস্কৃত হয়েছে কমিশনার আর কে মাথুরের কাছে। মাথুর বলেছেন, কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের এই জবাব শুধু অস্পষ্টই নয়, আইনতও অগ্রাহ্য। 
অথচ এর আগে সংসদে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক মালিয়ার অনাদায়ী ঋণ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাব দিয়েছে। মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী সন্তোষ গঙ্গোয়ার ১৭ মার্চ, ২০১৭ রাজ্যসভাকে জানান, ২০০৪ সালের সেপ্টেম্বরে ঋণ নেন বিজয় মালিয়া, ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে ঋণের পরিমাণের পুনর্মূল্যায়ন হয় এবং ২০০৯ সালে ঋণখেলাপি বিজয় মালিয়ার কাছে  রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির প্রাপ্য ৮০৪০ কোটি টাকা ‘‌অনাদায়ী ঋণ’‌ হিসেবে ঘোষিত হয়। ২০১০ সালে এই পরিমাণের পুনর্মূল্যায়ন হয়, কারণ মালিয়ার সম্পত্তির একাংশ বাজেয়াপ্ত করে নিলামে বিক্রি করে ১৫৫ কোটি টাকা উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছিল। ২১ মার্চ, ২০১৭ সংসদকে যে তথ্য দেন অর্থ রাষ্ট্রমন্ত্রী গঙ্গোয়ার।
১৮টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়ে, শোধ না দিয়ে বিদেশে পালিয়েছেন মালিয়া। এখন বহাল তবিয়তে রয়েছেন ব্রিটেনে, যেহেতু তিনি ওই দেশেরও নাগরিক। বারবার সমন জারি সত্ত্বেও দেশে ফেরেননি। তঁাকে দেশে ফেরাতে ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে ভারতের শুরু করা প্রত্যর্পণ প্রক্রিয়াও আইনি জটিলতায় থমকে আছে। এই পরিস্থিতিতে অর্থ মন্ত্রক বেমালুম বলে দিল, কোন কোন ব্যাঙ্ক থেকে কত ঋণ নিয়েছেন মালিয়া, তার সঠিক তথ্য তাদের জানা নেই!‌ গত শীত অধিবেশনেও মালিয়া প্রসঙ্গ উঠতেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি পূর্বতন ইউপিএ সরকারের ঘাড়ে সব দোষ চাপিয়ে দেন। বলেন, এই ভয়ঙ্কর উত্তরাধিকার বহন করে চলেছে বর্তমান এনডিএ সরকার। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top