আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তৃণমূলের তরফে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। কংগ্রেস সহ সমস্ত বিরোধী দলই দাবি তুলেছিল, যে করোনা আবহে আপাতত ভার্চুয়াল মাধ্যমেই হোক সংসদীয় প্যানেলের বৈঠক। তাতে অন্তত দেশের সংসদীয় কাজকর্ম চলবে। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা চালানো যাবে। মোদি সরকার বরাবরই এই প্রস্তাবে পাত্তা দেয়নি। এবার উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু এবং লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা এই প্রস্তাবে সরাসরি ভেটোই দিয়ে দিলেন। জানিয়ে দিলেন, ভার্চুয়াল মাধ্যমে সংসদীয় প্যানেলের বৈঠক হবে না।
কেন?‌ উপরাষ্ট্রপতি এবং লোকসভার স্পিকারের তরফে জানানো হয়েছে, এতে প্রযুক্তগত সমস্যা রয়েছে। আর গোপনীয়তা বিঘ্নিত হতে পারে। তাঁদের পরামর্শ, দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে এলে ফের সংসদেই সরাসরি বৈঠকে বসবেন প্যানেলের সদস্যরা। নয়তো আইন সংশোধনের প্রস্তাব আনতে হবে।
বিরোধীরা যদিও কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ। তাঁদের অভিযোগ, করোনা আবহে কেন্দ্র নতুন সংসদীয় বিল্ডিং তৈরি করতে পারছে। অথচ ভার্চুয়াল মাধ্যমে বৈঠকে বসছে না। এভাবে আসলে বিরোধীদের নিষ্ক্রিয় করার চেষ্টা করছে মোদি সরকার। 
প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জয়রাম রমেশ লিখেছেন টুইটারে, ‘‌আমি এতটুকু হতবাক নই। প্রায় এক বছর ধরে অনুরোধের পরেও ভার্চুয়াল মাধ্যমে বৈঠক করার অনুমতি দেয়নি সরকার। প্রধানমন্ত্রী সমস্ত বৈঠক ভার্চুয়ালি করছেন। অথচ ৩০ জন সাংসদ তা করতে পারেন না। পৃথিবীর কোনও দেশে সংসদ এভাবে কর্তব্য থেকে পালিয়ে বেড়ায় না যা ভারতে হয়।’‌
প্রসঙ্গত, আমেরিকা, ইউরোপের সব দেশে বিভিন্ন সময় ভার্চুয়াল মাধ্যমেই হয় সংসদীয় বৈঠক। বিশেষজ এই করোনা আবহে। ভারতে এখনও অনুমোদন দিল না মোদি সরকার। 

জনপ্রিয়

Back To Top