আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তামিলনাড়ুর পর যোগীর রাজ্য উত্তরপ্রদেশের জালাউন। তরুণীকে চুরির অভিযোগে থানায় নিয়ে গিয়ে চরম মারধর করল পুলিশ। পরিবারের অভিযোগ,সে কারণেই আত্মহত্যা করেন ২১ বছরের তরুণী। পরিবারের আরও অভিযোগ, মহিলা কনস্টেবলের থেকে লকআপে পুরুষ অফিসাররাই বেশি মারেন তরুণীকে। 
শুক্রবার দুপুরে তরুণী এবং তাঁর দুই বন্ধুকে থানায় তুলে আনে জালাউন পুলিশ। স্থানীয় এক দোকানি তাঁদের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ করে। তরুণী পরিবারের অভিযোগ, থানায় চরম মানসিক এবং শারীরিক অত্যাচার করে পুলিশ। শুধু তাই নয়, জেরার সময় থানায় এক জন মাত্র মহিলা কনস্টেবল উপস্থিত ছিলেন। মূলত পুরুষ পুলিশকর্মীরাই বেশি নিগ্রহ করেন তরুণীকে।
মৃত তরুণীর বোন জানালেন, ‘‌বাজার থেকে মারতে মারতে ওই তরুণীকে তুলে আনে পুলিশ। গল্প বানায়। এর পর থানায় দরজা বন্ধ করে ফের পেটায়। মহিলা কনস্টেবলের থেকে পুরুষ অফিসাররাই বেশি মারেন।’‌ শুক্রবার সন্ধেবেলা তরুণীকে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। শর্ত দেওয়া হয়, পরের দিন আবার হাজির দিতে হবে। নিগৃহীতার বোনের অভিযোগ, সেই শুনেই বাড়ি ফিরে শনিবার সকালে আত্মহত্যা করেন তাঁর দিদি। যদিও কোনও সুইসাইট নোট মেলেনি। 
জালাউন পুলিশের এসিপি এই আত্মহত্যার কথা স্বীকার করেছেন। জানিয়েছেন ঘটনার তদন্ত হবে। টুইটারে পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ময়নাতদন্ত হয়েছে। রিপোর্ট এলে এই নিয়ে মন্তব্য করবে পুলিশ। তরুণীর আত্মহত্যার প্রতিবাদে স্থানীয় থানা ঘেরাও করে পরিবার এবং গ্রামের লোক। জুন মাসে তামিলনাড়ুর সাথানকুলামে পুলিশের অত্যাচারে হেফাজতে মৃত্যু হয় বাবা–ছেলের। সেই নিয়ে সোরগোল পড়ে যায় গোটা দেশে। এবার জালাউন।    
 

জনপ্রিয়

Back To Top