আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক। কিন্তু তা দিতে হবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে। ইউজিসির আগে জারি করা এই নির্দেশিকায় বিভ্রান্তি ছড়িয়েছিল সারা দেশের ছাত্রছাত্রী, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষগুলির মধ্যে। নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে বৃহস্পতিবার ফের বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছে ইউজিসি। ইউজিসি–র সচিব, অধ্যাপক রজনীশ জৈন এদিন সংবাদ সংস্থা এএনআই–কে বলেছেন, দেশের সব কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নেওয়াটা যেমন বাধ্যতামূলক। কিন্তু ছাত্রছাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার দিকটাও তাঁদের মাথায় রাখতে হয়েছে। এজন্য ইউজিসি–র প্রস্তাব, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা হয় অনলাইনে নিতে পারেন। যেখানে বাড়িতে বসেই পরীক্ষা দিতে পারবেন ছাত্রছাত্রীরা। অথবা অফলাইনে নিতে পারেন। যেখানে তাঁরা কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে গিয়ে পরীক্ষা দিতে পারবেন। অথবা কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষগুলি এই দুটি পন্থাই মিলিয়ে পরীক্ষা নিতে পারে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর বা এসওপি–র দেওয়া নির্দেশিকা অনুসারেই ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ইউজিসি–র সচিব। মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের সঙ্গে মিলে এসওপি প্রকাশও করেছে ইউজিসি। গত ছয় তারিখ ইউজিসি–র নতুন নির্দেশিকার উপর ভিত্তি করেই এই এসওপি তৈরি হয়েছে।
এদিকে বৃহস্পতিবারই দিল্লি হাইকোর্ট দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়কে ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষার সূচি বিস্তারিত জানিয়ে এফিডেভিট দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছে। এফিডেভিটে বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা কোন উপায়ে নিতে চাইছে তাও বিশদে জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
ছবি:‌ এএনআই  

 

 

জনপ্রিয়

Back To Top