আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দু’‌জনেই তাঁকে ভালোবাসেন। দু’‌জনেই নাছোড়। বিয়ে করলে তাঁকেই করবেন। তিনিও দু’‌জনের মধ্যে এক জনকে বেছে নিতে পারছিলেন না। তাই একই মণ্ডপে দু’‌জনকেই বিয়ে করলেন যুবক। তিন জনের নাম–পরিচয় দিয়ে কার্ডও ছাপানো হল। ছত্তিশগড়ের ঘটনা। 
যুবকের নাম চান্দু মৌর্য। তিনি পেশায় কৃষক। চান্দু সুন্দরী কাশ্যপ নামে একটি মেয়ের প্রেমে পড়েন। তাঁকে নিজের বাড়িতেও নিয়ে আসেন। দু’‌জনে এক সঙ্গে থাকতে শুরু করেন। ঠিক এক মাস পর হাসিনা বাঘেল নামে অন্য একটি মেয়েকে ভালো লাগে চান্দুর। তাঁকেও বাড়িতে নিয়ে আসেন।
সকলে ভেবেছিলেন, এতে হয়তো চটে যাবেন সুন্দরী। নাহ্‌, তেমন কিছুই হয়নি। বরং হাসিনাকে মেনে নিয়েছেন তিনি। জানা গিয়েছে, তিনজন একসঙ্গে সহবাসও করেছেন। প্রায় এক বছর একসঙ্গে থাকার পরে একে অপরকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন তিন জন। তাঁদের পরিবারও মেনে নিয়েছে। তিন জনেক নাম লিখে কার্ড ছাপানো হয়েছে। 
৩ জানুয়ারি ধুমধাম করে বিয়ে হল সুন্দরী–চান্দু–হাসিনার। এক সঙ্গে দুই তরুণীর হাত ধরলেন যুবক। নিমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ৬০০ জন। সবাই কানাঘুষো করলেও তিন জন কিন্তু দারুণ খুশি। 

জনপ্রিয়

Back To Top