তরুণ চক্রবর্তী- সোমবার থেকে নতুন করে ১০০ জোড়া বিশেষ ট্রেন চালু হওয়ার আগে বাড়তি সতর্কতা জারি করা হল। এখন থেকে সমস্ত টিকিট পরীক্ষক (‌টিটিই)‌ যাত্রা শুরুর আগে শারীরিক পরীক্ষার মুখোমুখি হবেন। যাত্রাপথে টিটিইদের হাতে ওয়াকিটকি দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। ভাল করে স্যানিটাইজ করতে বলা হয়েছে রেস্টরুমগুলিকে। পর্যাপ্ত মাস্ক, সুরক্ষাবর্ম (পিপিই) ও স্যানিটাইজার টিটিইদের দেওয়ার জন্য আঞ্চলিক রেলের কর্তাদের নির্দেশ দিয়েছে ভারতীয় রেল। 
১৮ দফা নির্দেশিকায় রেলের টিকিট পরীক্ষকদের কালো কোট ও টাই পরতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে বুকে নাম ও পদবি লেখা ব্যাজ পরতে বলা হয়েছে। মাস্ক বা অন্যান্য রক্ষাকবচ পরতেই হবে। যাত্রীদের সঙ্গে কোনওভাবেই সংস্পর্শে আসতে নিষেধ করা হয়েছে। প্রয়োজনে ম্যাগনিফাইং গ্লাস দিয়ে টিকিট পরীক্ষা করতে হবে। বারবার হাত ধুতে বলা হয়েছে। ব্যবহার করতে হবে স্যানিটাইজার। সোমবার থেকে ১১৫ জোড়া বিশেষ ট্রেন চালানোর আগে রেলবোর্ডের নির্দেশিকা কলকাতায় পূর্ব ও দক্ষিণ পূর্ব রেলের সদর দপ্তরে এসে পৌঁছেছে। পূর্ব রেলের সিপিআরও নিখিল চক্রবর্তী এবং দক্ষিণ পূর্ব রেলের সিপিআরও সঞ্জয় ঘোষ জানিয়েছেন, নির্দেশিকা মেনে তাঁরা যাত্রী ও রেলকর্মীদের সুরক্ষায় ব্যবস্থা নিচ্ছেন। আইআরসিটিসি–‌র গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার দেবাশিস চন্দ জানিয়েছেন, বিশেষ ট্রেনগুলিতে রান্নার ব্যবস্থা থাকছে না। তবে পয়সা দিয়ে চা, জল বা অন্যান্য প্যাকেটজাত খাবার পাওয়া যাবে। ট্রেনে এখন রান্নার বন্দোবস্ত করার অনুমতি নেই। তবে নুডলসও রাখবেন তাঁরা। সেইসঙ্গে দেবাশিসবাবু চলন্ত ট্রেনে কর্মরত আইআরসিটিসি–‌র ছেলেদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বাধ্যবাধকতার কথাও স্মরণ করিয়ে দেন।

জনপ্রিয়

Back To Top