আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌একটি গাছকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য প্রত্যেক বছর লাখ লাখ টাকা খরচ করছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। প্রত্যেকদিন অন্তত চারটে পুলিশ তো থাকেই গাছটিকে পাহারা দেওয়ার জন্য। কিন্তু কেন?‌ শোনা যায়, বহু বছর আগে যে বোধি বৃক্ষের নিচে বসে তপস্যা করে মোক্ষ লাভ করেছিলেন ভগবান বুদ্ধ, ভারত থেকে সেই বোধি বৃক্ষের শাখা শ্রীলঙ্কায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। অনুরাধাপুরা এলাকায় সেটিকে পুঁতে দেওয়া হয়েছিল। কয়েকবছর আগে ভারত সফরে এসে মধ্যপ্রদেশের সালমাতপুরে একটি অশ্বত্থ গাছের চারা পুঁতেছিলেন শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মাহিন্দা রাজাপক্ষে। শ্রীলঙ্কা থেকেই ওই অশ্বত্থ গাছের চারাটি নিয়ে এসেছিলেন তিনি। তখন বলা হয়, এই গাছটিও সেই বোধি বৃক্ষের অংশ।
মধ্যপ্রদেশের সাঁচি বৌদ্ধ মঠ থেকে কিছুটা দূরেই পাহাড় ঘেরা ছোট্ট জনপদ সালমাতপুর অঞ্চলে রয়েছে এই গাছটি। প্রকৃতির নিয়মে সেই চারা গাছটি এখন একটি পূর্ণবয়স্ক গাছে পরিণত হয়েছে। আর সেই গাছটিকে এখন ‘ভিভিআইপি ট্রি’-র মর্যাদা দিয়েছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। গাছটিকে বাঁচিয়ে রাখতে সরকারি কোষাগার থেকে প্রতি বছর খরচ করা হচ্ছে ১২ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা। গাছটির চারিদিকে পাঁচিল তোলা হয়েছে। গাছটির উপর ২৪ ঘণ্টা নজর রাখার জন্য মোতায়েন করা হয়েছে নিরাপত্তারক্ষী। শুধু পাঁচিল তোলা বা নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করাই নয়, সালমাতপুরের এই অশ্বত্থ গাছটিকে জল দেওয়ার জন্য আলাদা একটি জলাধারও তৈরি করেছে মধ্যপ্রদেশ সরকার। প্রতি সপ্তাহে সালমাতপুরে গিয়ে অশ্বত্থ গাছটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে আসেন রাজ্য সরকারের কৃষি দপ্তরের উদ্ভিদবিদেরা। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top