আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নিজে লোকের বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন। কোনওরকমে সংসার চলে। তা সত্ত্বেও ১৩ জন ‘‌সন্তান’দের খাওয়াতে নিজে একবেলা খান চেন্নাইয়ের মায়লাপুর বস্তির বাসিন্দা মীনা। না এরা কেউই নিজের নয়। রাস্তার কুকুর। কিন্তু মীনার কাছে তারা নিজের সন্তানদের থেকে কম না।
করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে লকডাউন। ফুটপাত হোক কিংবা বড় রেস্তরাঁ–সমস্ত খাবারের দোকানই বন্ধ। ফলে বিপদে পড়েছে পথকুকুররাও। কারণ খাবার দেওয়ার লোকও নেই। এই অবস্থায় অসহায় প্রাণীগুলোর জন্য অনেকেই এগিয়ে এসেছেন। তাঁদের মতোই একজন মীনা। ‌বছরের পর বছর ধরে কুকুরগুলো মীনার সঙ্গে রয়েছে। এই লকডাউনে মীনার আর্থিক অবস্থা খুব খারাপ। অথচ নিজের প্রাণের পোষ্যগুলোকে তো ভালো রাখতে হবে! তাই নিজে খাচ্ছেন একবেলা, আর বাকিটা নিজের ‘‌সন্তানদের’‌ খাওয়াচ্ছেন যথাসাধ্য। গত ২১ বছর ধরেই মীনার সন্তান এমন পথকুকুররাই। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতেই মীনার খবর সামনে এসেছে। তবে মীনার মতে এটা তাঁর দায়িত্ব। কিন্তু লকডাউনে চলছে কীভাবে? মীনা জানান, ‘‌প্রথমে খুব অসুবিধা হচ্ছিল। কাজ না করে অগ্রিম বেতন চাইতে পারছিলাম না। কিন্তু সৌভাগ্যবশত দুটো বাড়ির মানুষজন অগ্রিম বেতন দিয়ে দেন। ওঁরা জানেন আমার পরিবারে ১৩টা সন্তান রয়েছে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top